• রবিবার, আগস্ট ১৮, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:৩৭ রাত

পুলিশের কাছ থেকে ছিনিয়ে নেওয়া জিনের বাদশা ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

  • প্রকাশিত ১০:১০ সকাল আগস্ট ৯, ২০১৯
বন্দুকযুদ্ধ
প্রতীকী ছবি

এঘটনায় আহত হয়েছেন তিন পুলিশ সদস্য

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে পুলিশের কাছ থেকে হাতকড়াসহ ছিনিয়ে নেওয়া ১৮ মামলার আসামি ‘জিনের বাদশা’ প্রতারক চক্রের মূলহোতা চিনু মিয়া (৩৮) পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে মারা গেছেন। এঘটনায় আহত হয়েছেন তিন পুলিশ সদস্য।

শুক্রবার (৯ আগস্ট) ভোররাত পৌনে চারটার দিকে উপজেলার কাটাখালি বাঁধের সাপগাছি হাতিয়াদহ এলাকায় এঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নিহত চিনু মিয়ার বাড়ি উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের বিশ্বনাথ গ্রামে। নিজেকে ‘জিনের বাদশা’ পরিচয় দিয়ে মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছিল। তার বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টা, অস্ত্র আইন, প্রতারণা, চাঁদাবাজি, অপরহণ, অগ্নিসংযোগ ও নাশকতাসহ ১৮টি মামলা বিচারাধীন।

আহত তিন পুলিশ সদস্যকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের পরিচয় জানাতে পারেননি গোবিন্দগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মেহেদী হাসান।

ওসি জানান, পুলিশের কাছ থেকে হাতকড়াসহ ছিনিয়ে নেওয়া আসামি চিনু মিয়া শুক্রবার গভীররাতে জেলার চরাঞ্চলের দিকে পালিয়ে যাচ্ছিলো। খবর পেয়ে পুলিশ পথে (কাটাখালি বাঁধের সাপগাছি হাতিয়াদহ এলাকায়) অবস্থান নেয়। চিনু ও তার সহযোগীরা কাছাকাছি পৌঁছলে পুলিশ তাদেরকে আটকের চেষ্টা করে। টের পেয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে তারা। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। একপর্যায়ে দুর্বৃত্তরা পিছু হটে গেলে ঘটনাস্থল থেকে চিনু মিয়ার গুলিবিদ্ধ মরদেহ, অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করে পুলিশ।”

তিনি আরও জানান, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা সদর আধুনিক হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। 

গত বুধবার (৭ আগস্ট) রাত ১০টার দিকে বিশ্বনাথ গ্রাম থেকে চিনুকে আটক করে গাড়িতে উঠিয়ে গোবিন্দগঞ্জ থানার উদ্দেশ্যে রওনা হয় পুলিশ। বিশ্বনাথ গ্রামের সাতারপাড়া বাঁধের ওপর তার সহযোগী ও স্বজনরা লাঠিসোটা এবং দেশীয় অস্ত্র হাতে নিয়ে পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে চিনু মিয়াকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়।