• রবিবার, ডিসেম্বর ১৫, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৮:৪৫ সকাল

সহপাঠীকে ধর্ষণ, কর কমিশনারের ছেলের একদিনের রিমান্ড

  • প্রকাশিত ০১:৪৪ দুপুর আগস্ট ১৮, ২০১৯
খুলনা
বৃহস্পতিবার অভিযুক্ত শিঞ্জন রায়কে আটক করে পুলিশ। ঢাকা ট্রিবিউন

মেয়েটি সাতমাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে, পরিবারের সিদ্ধান্তে গত ১৪ আগস্ট অন্যত্র বিয়ে করে শিঞ্জন

খুলনার নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ মামলায় কর কমিশনারের ছেলে শিঞ্জন রায়কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। 

রবিবার (১৮ আগস্ট) দুপুরে খুলনা মহানগর ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ৩ এর বিচারক মোঃ শাহিদুল ইসলাম শুনানী শেষে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মোঃ তৌহিদুর রহমান এতথ্য নিশ্চিত করে বলেন, “শিঞ্জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে পাঁচদিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছিল।”

শনিবার ডাক্তারি পরীক্ষা শেষে ধর্ষিত মেয়েকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (খুমেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার (ওসিসি) থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ভুক্তভোগী ওই ছাত্রীকে আইনি সহায়তা দেবে বলে জানিয়েছে মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা। সংস্থার জেলা সমন্বয়কারী অ্যাড. মোমিনুল ইসলাম আইনি সহায়তার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, “শুক্রবার ধর্ষণের শিকার মেয়েটিকে সকাল থেকে গত ২৪ ঘণ্টা ওসিসিতে রাখা হয়েছিল। এসময় তার ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়। এছাড়াও তাকে মানসিক নিরাপত্তা দানের লক্ষ্যে কাউন্সিলিং করা হয়। শনিবার দুপুরে তাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। তার পরিবারের সদস্যরা তাকে বাড়িতে নিয়ে গেছে।”

খুমেক হাসপাতালের ডাঃ শফিউজ্জামান বলেন, “ধর্ষণের শিকার মেয়েটির (ল্যাব টেস্ট) পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য স্যাম্পল নেওয়া হয়েছে। এছাড়াও ডিএনএ টেস্টের জন্যও স্যাম্পল নেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত,  অভিযুক্ত শিঞ্জন খুলনার কর কমিশনার প্রশান্ত কুমার রায়ের পুত্র ও খুলনার নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির এলএলবির শিক্ষার্থী। বিশ্ববিদ্যালয় পড়াকালে একটি সম্পর্কে জড়িয়ে পড়লে মেয়েটি সাতমাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। এঘটনায় মেয়েটি বিয়ের জন্য চাপ দিতে থাকলে শিঞ্জন তা অগ্রাহ্য করে। এঅবস্থায় পরিবারের সিদ্ধান্তে গত ১৪ আগস্ট অন্যত্র বিয়ে করে শিঞ্জন। এখবর জানতে পেরে ১৫ আগস্ট রাতে ওই ছাত্রী শিঞ্জনের বাসার সামনে গিয়ে বাক-বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে, একপর্যায়ে পুলিশ খবর পেয়ে দু’জনকেই থানায় নিয়ে যায়। 

জিজ্ঞাসাবাদের পর শুক্রবার ভোরে মেয়েটিকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য খুমেক হাসপাতালের ওসিসিতে প্রেরণ করে। ওইদিনই নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী ২০০৩’এর ৯’এর ১) ধারায় শিঞ্জন রায়কে আসামি করে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন অন্তঃসত্ত্বা ওই শিক্ষার্থী। পুলিশ বিকেল চারটার দিকে শিঞ্জনকে আদালতে হাজির করে পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করে।