• বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩৮ রাত

ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও উৎসবের মধ্যদিয়ে সারাদেশে শুভ জন্মাষ্টমী উদযাপিত

  • প্রকাশিত ০৯:৫০ রাত আগস্ট ২৩, ২০১৯
জন্মাষ্টমী
সারাদেশে শুভ জন্মাষ্টমী উদযাপিত। ছবি: ফোকাস বাংলা

সাপ্তাহিক ছুটি থাকা সত্ত্বেও সরকার এদিন সরকারি ছুটি ঘোষণা করে। এছাড়া, বাংলাদেশ টেলিভিশন, বেতার ও বেসরকারি স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতে সম্প্রচারিত হয় জন্মাষ্টমীর বিশেষ অনুষ্ঠানমালা

যথাযথ ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও আনন্দ-উৎসবের মধ্যদিয়ে শুক্রবার (২৩ আগস্ট) রাজধানীসহ সারাদেশে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের জন্মাষ্টমী উদযাপিত হয়েছে। সনাতন ধর্মাবলম্বীরা তাদের আরাধ্য ভগবান শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মাষ্টমী উদযাপন করেছেন।

হিন্দু পুরাণমতে, ভাদ্র মাসের শুক্লপক্ষের অষ্টমী তিথিতে ভগবান শ্রীকৃষ্ণ জন্মগ্রহণ করেন। সনাতন ধর্মালম্বীদের বিশ্বাস, পাশবিক শক্তি যখন ন্যায়নীতি, সত্য ও সুন্দরকে গ্রাস করতে উদ্যত হয়েছিল, তখন সে-শক্তিকে দমন করে মানবজাতির কল্যাণ এবং ন্যায়নীতি প্রতিষ্ঠার জন্য মহাবতার ভগবান শ্রীকৃষ্ণের আবির্ভাব ঘটেছিল।

কৃষ্ণভক্তদের বিশ্বাস, দুষ্টের দমন করতে যুগে-যুগে এভাবেই ভগবান মানুষের মাঝে নেমে আসেন এবং সত্য ও সুন্দরকে প্রতিষ্ঠা করেন।

শুভ জন্মাষ্টমী উপলক্ষ্যে শুক্রবার সকাল ৮টায় দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় গীতাযজ্ঞ এবং বিকেলে উৎসবমুখর পরিবেশে শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া সনাতন ধর্মাবলম্বীদের উদ্যোগে পরিচালিত বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় সংগঠন নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে দিনটি উদযাপিত করে।

এছাড়াও রাষ্ট্রপতি মো.আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণীতে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের পাশাপাশি দেশবাসীকে জন্মাষ্টমীর শুভেচ্ছা জানান।

শুভ জন্মাষ্টমীতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বঙ্গভবনে আজ হিন্দু সম্প্রদায়ের বিশিষ্ট নাগরিকদের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

সাপ্তাহিক ছুটি থাকা সত্ত্বেও সরকার এদিন সরকারি ছুটি ঘোষণা করে। 

বাংলাদেশ টেলিভিশন, বেতার ও বেসরকারি স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেলগুলোতে সম্প্রচারিত হয় জন্মাষ্টমীর বিশেষ অনুষ্ঠানমালা।





 
শুভ জন্মাষ্টমীর শোভাযাত্রা। ছবি: ফোকাস বাংলা 

এদিকে শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মাষ্টমী উপলক্ষে বাংলাদেশ পুজা উদযাপন পরিষদ ও মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির উদ্যোগে ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে দুু’দিনব্যাপী কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে শুত্রবার সকাল ৮ টায় দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনা করে গীতাযজ্ঞ এবং বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির থেকে জন্মাষ্টমী’র বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। এছাড়াও শুক্রবার রাতে ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে অনুষ্ঠিত হয় কৃষ্ণপূজা।

এবার জন্মাষ্টমী’র শোভাযাত্রার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বিশেষ অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন এ শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন।

জন্মাষ্টমীর শোভাযাত্রা ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির থেকে বের হয়ে পলাশীবাজার-জগন্নাথ হল-কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার-দোয়েল চত্বর-হাইকোর্ট-জাতীয় প্রেসক্লাব-পুরানা পল্টন-শহীদ নূর হোসেন স্কয়ার-গোলাপ শাহ মাজার-গুলিস্তান মোড়-নবাবপুর রোড-রায়সাহেব বাজার প্রদক্ষিণ করে পুরান ঢাকার বাহাদুর শাহ পার্কে গিয়ে শেষ হয়। শ্রী কৃষ্ণ ভক্তরা ঢাকসহ নানা বাদ্যযন্ত্র সহকারে শোভাযাত্রায় অংশ নেয়। এসময় অনেকের হাতে শ্রী কৃষ্ণের প্রতিকৃতি শোভা পায়।