• বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:২৮ সকাল

সার্ভিস রিভলবার দিয়ে পুলিশ উপ-পরিদর্শকের ‘আত্মহত্যা’

  • প্রকাশিত ০৫:২১ সন্ধ্যা আগস্ট ২৮, ২০১৯
কুড়িগ্রাম পুলিশ আত্মহত্যা
কুড়িগ্রাম সদর থানায় কর্মরত ছিলেন এসআই সেলিম ঢাকা ট্রিবিউন

লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে

কুড়িগ্রামে কর্মরত পুলিশের এক উপ-পরিদর্শক (এসআই) নিজের সার্ভিস রিভলবার দিয়ে মাথায় গুলি করে আত্মহত্যা করেছেন বলে জানা গেছে। বুধবার (২৮ আগস্ট) দুপুরে কুড়িগ্রাম শহরের হাটিরপাড় এলাকার ভাড়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে।

মৃত পুলিশ সদস্য সেলিম জাহাঙ্গীরের পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহফুজার রহমান ঢাকা ট্রিবিউনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, সেলিম জাহাঙ্গীর (৩৫) সদর থানার সদর ফাঁড়িতে কর্মরত ছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি দিনাজপুরের ফুলবাড়ি উপজেলার গৌড়িপাড়ায়। বাবার নাম আবুল কালাম আজাদ। তিনি ছিলেন বাবা-মায়ের একমাত্র ছেলে। ২০০৭ সালে এসআই হিসেবে পুলিশে যোগ দিয়েছিলেন সেলিম।

এ বিষয়ে সদর ফাঁড়ির এএসআই কামরুজ্জামান জানান, ‘‘বুধবার দুপুরে কুড়িগ্রাম সদর থানাধীন হাটিরপাড় এলাকায় নিজের ভাড়া বাসায় বসে পিস্তল পরিষ্কার করছিলেন জাহাঙ্গীর। এ সময় হঠাৎ মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে তিনি গুলি চালান বলে জানিয়েছে তার আট বছর বয়সী ছেলে। ছেলেটি ছাড়াও ঘটনার সময় বাসায় ছিলেন তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী, বাবা ও মা। তবে প্রাথমিকভাবে আত্মহত্যার কোনো কারণ জানা যায়নি।’’

বাসার গৃহকর্মী নূরজাহান গণমাধ্যমকর্মীদের জানিয়েছেন, স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সুসম্পর্ক ছিল এবং কোনো কলহ তার চোখে পড়েনি। তবে ঘটনার সময় জাহাঙ্গীর ওই ঘরে একা ছিলেন।

লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. শাহীনুর রহমান সর্দার জানান, লাশ দেখে মনে হচ্ছে মাথায় পিস্তল ঠেকিয়েই গুলি করা হয়েছে। তবে ময়নাতদন্তের পর বিস্তারিত বলা যাবে।  

কুড়িগ্রামের পুলিশ সুপার মুহিবুল ইসলাম খান জানান, এ বিষয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে।