• সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০৪ রাত

মুক্তি পেয়ে আকাশে উড়লো ৬৫১টি পাখি

  • প্রকাশিত ০৪:২১ বিকেল সেপ্টেম্বর ২, ২০১৯
বন্যপ্রানী
অভিযানে উদ্ধারকৃত পাখি রাজধানীর মিরপুরের জাতীয় উদ্ভিদ উদ্যানে ছেড়ে দেওয়ার প্রাক্কালে। ছবি: সংগৃহীত

উদ্ধারকৃত পাখির মধ্যে ৪২০টি তোতা, ২১০টি মুনিয়া ও ২১টি ঘুঘু রয়েছে

ঢাকার সাভারের ইটখোলা, জিরাবো বাজার ও কামরাঙ্গীরচর এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে বিভিন্ন প্রজাতির ৬৫১টি বন্যপাখি জব্দ করেছে বাংলাদেশ বন বিভাগের বন্যপ্রাণী অপরাধ নিয়ন্ত্রণ ইউনিট (WCCU)।

গোপনসূত্রে খবর পেয়ে রবিবার (১ আগস্ট) রাত ৩টার দিকে  ইটখোলা, জিরাবো বাজারে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানের বিষয়টি টের পেয়ে পাখি পাচারকারীরা পালিয়ে যায়। পরে সেখান থেকে পাখিগুলো উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত পাখির মধ্যে ৪২০টি তোতা, ২১০টি মুনিয়া ও ২১টি ঘুঘু রয়েছে। 

বন্যপ্রাণী পরিদর্শক আব্দুল্লাহ আস সাদিক জানান, পাখিগুলো পাচারের উদ্দেশে একটি স্থানে জড়ো করা হচ্ছে, এমন খবর পেয়ে বন্যপ্রাণী অপরাধ নিয়ন্ত্রণ ইউনিট জিরাবো এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানকালে পাচারের উদ্দেশে আনা পাখি ছাড়াও অন্য একটি ঘরে লুকিয়ে রাখা বেশ কিছু পাখিও উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত এসব পাখি সোমবার সকালে রাজধানীর মিরপুরের জাতীয় উদ্ভিদ উদ্যানে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এবিষয়ে বন্যপ্রাণী অপরাধ নিয়ন্ত্রণ ইউনিটের নবনিযুক্ত পরিচালক জহির আকন ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “অভিযুক্ত ব্যক্তিকে ধরার চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু অভিযানের খবর পেয়ে আগেই তারা পালিয়ে যায়। তবে বন্যপ্রাণী পাচার বন্ধে মূল হোতাদের ধরতে গোয়েন্দা তৎপরতা অব্যাহত থাকবে।”