• শনিবার, ডিসেম্বর ০৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৩৪ সকাল

শিক্ষার্থীদের দিয়ে টয়লেট পরিষ্কার করানোর অভিযোগ প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে

  • প্রকাশিত ১২:১৮ দুপুর সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৯
অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক
অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক নার্গিস বেগম। ঢাকা ট্রিবিউন

এছাড়াও স্কুলের শিক্ষার্থীদের সাথে প্রায়ই প্রচণ্ড দুর্ব্যবহার এবং মারধর করে থাকেন অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক

পিরোজপুরের সদর উপজেলা্র মধ্য নামাজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নার্গিস খানমের বিরুদ্ধে স্কুলের শিক্ষার্থীদের দিয়ে জোরপূর্বক টয়লেট পরিষ্কার করানোর অভিযোগ উঠেছে। 

রবিবার (৮ সেপ্টেম্বর) এর প্রতিবাদে প্রধান শিক্ষকের অপসারণের দাবিতে ওই স্কুলের সামনে মানববন্ধন করেছেন শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও স্থানীয়রা।

তাদের অভিযোগ, এই স্কুলে প্রায় ১০১ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। এদের সবাইকে দিয়ে জোর করে মাঝে-মধ্যে স্কুলের টয়লেট ও পানির ট্যাংকি পরিষ্কার করান নার্গিস বেগম। এতে শিক্ষার্থীরা প্রায়ই স্কুল থেকে বাড়িতে ফিরে অসুস্থ হয়ে পড়ে। এছাড়াও স্কুলের শিক্ষার্থীদের সাথে প্রায়ই প্রচণ্ড দুর্ব্যবহার এবং মারধর করে থাকেন।

মানববন্ধনে অংশ নেওয়া অভিভাবকদের আরও অভিযোগ, নিয়মিত স্কুলে আসেন না নার্গিস বেগম। তেমন কোনও ক্লাসও নেন না তিনি। তার খামখেয়ালিপনায় স্কুলের লেখাপড়ার মান একদম তলানিতে এসে ঠেকেছে। এসব নিয়ে অভিভাবকরা প্রশ্ন করলে তাদের সাথেও দুর্ব্যবহার করেন তিনি। এসব কারণে তারা তাদের সন্তানদের স্কুলে পাঠানো বন্ধ করতে বাধ্য হয়েছেন। এতে তাদের সন্তানদের লেখাপড়া ভীষণ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

তবে, অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক নার্গিস বেগম। ঢাকা ট্রিবিউনকে তিনি বলেন, "আমার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ করা হয়েছে তা সবই মিথ্যা। ব্যক্তিগত শত্রুতার কারণে শিক্ষার্থীদের দিয়ে এ কাজ করিয়েছে স্থানীয় কয়েকজন ব্যক্তি।"

প্রসঙ্গত, মানববন্ধনে ওই স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সেলিম শেখ নিজেও অংশ নেন।