• মঙ্গলবার, নভেম্বর ১৯, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫০ রাত

রাবিতে সাংবাদিকের সিট দখলে নিলেন ছাত্রলীগ নেতা

  • প্রকাশিত ০৪:০০ বিকেল সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৯
রাবি
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। ছবি: সংগৃহীত

অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা মিনহাজুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) এক সাংবাদিকের সিট দখলের অভিযোগ উঠেছে এক ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে। সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ হবিবুর রহমান হলে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী সাকিবুল হাসান ইংরেজি দৈনিক দ্যা এশিয়ান এজের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি ও আইন বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী। অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা মিনহাজুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক। সে শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি গোলাম কিবরিয়ার অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

সাকিব জানান, কিছু দিন আগে হবিবুর রহমান হলে ২২৪ নম্বর কক্ষে সিট বরাদ্দ পান তিনি। সোমবার রাত ৯টার দিকে সিটে উঠতে গেলে মিনহাজসহ হল ছাত্রলীগের ১৫-২০ জন নেতাকর্মী তাকে বাধা দেন। জোরপূর্বক তার জিনিসপত্র ফেলে দেওয়া হয়। এসময় ছাত্রলীগ নেতা মিনহাজ অকথ্য ভাষায় গালিগালাজও করেন বলে অভিযোগ করেন সাকিব।

তিনি আরও বলেন, “বিষয়টি হল প্রাধ্যক্ষকে জানালে মিনহাজ আমাকে মারতে উদ্যত হন। পরে রাত সাড়ে ১০টার দিকে ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক হলে এসে হল প্রাধ্যক্ষের কক্ষে বৈঠকে বসেন। প্রায় ঘণ্টাব্যাপী বৈঠক শেষে তারা ওই সিট ছাত্রলীগের দখলে রেখেই চলে যান।”

তবে গালিগালাজের বিষয়টি অস্বীকার করে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা মিনহাজুল ইসলাম বলেন, ‘‘২২৪ নম্বর কক্ষে একটি সিট খালি হওয়ায় আমি আমার এক ছোট ভাইকে নিয়ে ওই কক্ষে যাই। পরে জানতে পারি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে এক শিক্ষার্থীকে ওই কক্ষে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। তবে সেখানে যাওয়া আমার উচিত হয়নি।’’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শহীদ হবিবুর রহমান হলের প্রাধ্যক্ষ সহযোগী অধ্যাপক জাহিদুল ইসলাম ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “হল প্রশাসন সাকিবকে সিট বরাদ্দ দিয়েছিল। কিন্তু সাকিব নিজে না উঠে অন্য এক শিক্ষার্থীকে তুলে দিতে চেয়েছিল। এই নিয়ে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়েছে। পরে বিষয়টি সমাধান করে দিয়েছি।”

ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে বৈঠকের বিষয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, “তারা হয়তো কোনো কাজে এসেছিল। তবে আমার সঙ্গে কোনো বৈঠক হয়নি।”