• শনিবার, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০২:১১ দুপুর

টাঙ্গাইলে দুই প্রতিবন্ধীপুত্র নিয়ে প্রতিবন্ধী বাবার মানবেতর জীবনযাপন, জোটেনি ভাতাও

  • প্রকাশিত ০২:১৬ দুপুর সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯
টাঙ্গাইল
শাহীন মিয়া ও তার দুই সন্তান। ঢাকা ট্রিবিউন

শাহীন মিয়া বারবার স্থানীয় জনপ্রতিনিধির দ্বারস্থ হয়েও কোনো সুফল পাননি

টাঙ্গাইলের সখীপুরে দুই প্রতিবন্ধী শিশুপুত্রকে নিয়ে প্রতিবন্ধী বাবা শাহীন মিয়া মানবেতর জীবনযাপন করছেন। সাত ও ১০ বছর বয়সী প্রতিবন্ধী ওই দুই পুত্র সন্তান (বাকপ্রতিবন্ধী) একজনও কথা বলতে পারে না। বাবা শাহীন মিয়ার দুটি পা দেহের তুলনায় অত্যন্ত চিকন হয়ে গেছে। তাদের বাড়ি উপজেলার কচুয়া গ্রামে। 

এদিকে প্রতিবন্ধী স্বামী ও দুই প্রতিবন্ধী পুত্রের খাবার জোগাতে রাত-দিন পরিশ্রম করে যাচ্ছেন শাহীন মিয়ার স্ত্রী শাহনাজ বেগম। অন্যের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করে কোনো মতে সংসার চালাচ্ছেন। সংসারের ঘানি টানতে টানতে তিনিও নানান অসুখে ভোগেন। 

শাহীন মিয়া জানান, তার দুই প্রতিবন্ধী সন্তান সিয়াতের বয়স এখন সাত ও ইসমাইলের বয়স ১০ বছর হয়েছে। তার দুটি পা দেহের তুলনায় অত্যন্ত চিকন হয়ে গেছে। কাজকর্ম তো দূরের কথা, হাঁটাচলাও এখন দুষ্কর হয়ে পড়েছে। তিনি নিদারুণ কষ্টে রয়েছেন। তার স্ত্রীর ওপরই এখন সংসারের পুরো দায়িত্ব। অন্যের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ না করলে পরিবারের সবাইকে অনাহারে থাকতে হতো। তিনি ও দুই প্রতিবন্ধীপুত্রের কেউই প্রতিবন্ধী ভাতা পান না। এ জন্য শাহীন মিয়া বারবার স্থানীয় জনপ্রতিনিধির দ্বারস্থ হয়েও কোনো সুফল পাননি বলে জানান। 

এ ব্যাপারে সখীপুর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মনসুর আহমেদ বলেন, “একই পরিবারের তিনজনকে নিয়ম অনুযায়ী ভাতা পাওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।”