• রবিবার, অক্টোবর ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩৩ রাত

দু’টি কন্যা সন্তানের জন্ম, একটিকে গলাটিপে হত্যা করলো বাবা

  • প্রকাশিত ১০:৪০ রাত সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৯
হত্যা
প্রতীকী ছবি

দুইটি কন্যা সন্তান হওয়ায় মাঝে মাঝে মেয়েদের হত্যারও হুমকি দিতেন অভিযুক্ত বদিউজ্জামান

সাত বছরের সংসারে প্রথমে গর্ভে আসে কন্যা সন্তান। তবে, স্বামীর পছন্দ ছেলে সন্তান। ৯ মাস আগে তাদের আবারো একটি কন্যা সন্তান হয়।

এনিয়ে প্রায়ই ঝগড়া ও দাম্পত্য কলহ লেগে থাকতো স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে। মাঝেমাঝে মেয়েদের হত্যারও হুমকি দিতেন বাবা। সেই হুমকি শেষপর্যন্ত বাস্তবায়নই করেছেন সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার মুকন্দগাঁতি গ্রামের তাঁত শ্রমিক বদিউজ্জামান।

নিজের ৯ মাসের মেয়েকে গলাটিপে হত্যা করেছেন। হত্যার পর তার লাশ স্থানীয় একটি ডোবায় ফেলে দিয়ে ফেরারি হয়েছেন তিনি।

শুক্রবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সকালে পুলিশ ওই ডোবা থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

বেলকুচি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ারুল ইসলাম জানান, প্রায় ৭ বছর আগে তাঁত শ্রমিক বদিউজ্জামানের সাথে পাবনার মির্জাপুর গ্রামের সিকেন্দার আলীর মেয়ে সুন্দরী খাতুনের বিয়ে হয়।

কয়েক বছর আগে তাদের সংসারে একটি কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। এনিয়ে তাদের সংসারে অশান্তি চলে আসছিল দীর্ঘদিন ধরে। দ্বিতীয় দফায় একটি ছেলে সন্তানের আশা করলেও আবারো কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। একারণে বদিউজ্জামান প্রায়ই স্ত্রীকে মারধর ও সন্তানকে হত্যার হুমকি দিতো। নিহতের মা সুন্দরী খাতুন বাদী হয়ে বদিউজ্জামানের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেছেন বলে জানান ওসি।