• শুক্রবার, অক্টোবর ১৮, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৩:৪৬ বিকেল

রামেকে ডেঙ্গু আক্রান্ত আরও এক নারীর মৃত্যু

  • প্রকাশিত ০৪:১৮ বিকেল সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৯
ডেঙ্গু
রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগীরা। মাহমুদ হোসেন অপু/ঢাকা ট্রিবিউন (ফাইল ছবি)

এনিয়ে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনজনের মৃত্যু হয়েছে

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে রওশন আরা (৫৫) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

নিহত রওশন আরা কুষ্টিয়া জেলার ভেড়ামারা উপজেলার ঠাকুর দৌলতপুর গ্রামের মোসলেম উদ্দিনের স্ত্রী।

রামেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. সাইফুল ইসলাম ফেরদৌস জানান, “গত ৮ সেপ্টেম্বর রওশন আরা নামের ওই নারী ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হন। পরে ১০ সেপ্টেম্বর তাকে কুষ্টিয়া হাসপাতাল থেকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। কিন্তু তার শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি ঘটায় ১২ সেপ্টেম্বর সকালে তাকে হাসপাতালের ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) স্থানান্তর করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার সকাল ১০টা ১০ মিনিটের দিকে তার মৃত্যু হয়।”

তিনি জানান, “এনিয়ে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।”

এডিস মশাবাহী ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা সরকারি হিসেবে ৮০ হাজার ছাড়িয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম শুক্রবার জানিয়েছে, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে ১৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৮০ হাজার ৪০ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী হাসপাতালে ভর্তি হন। এরমধ্যে ছাড়পত্র নিয়েছেন ৭৬ হাজার ৯৩৭ জন।

এদিকে বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ৬৭৩ জন নতুন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, নতুন রোগীদের মধ্যে ঢাকায় ভর্তি হয়েছেন ২২৯ জন। এছাড়া ঢাকার বাইরে ৪৪৪ জন নতুন রোগী ভর্তি হয়েছেন।

বর্তমানে সারাদেশের হাসপাতালগুলোতে ২ হাজার ৯০০ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি রয়েছেন। তাদের মধ্যে ঢাকার ৪১টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ১ হাজার ২৮২ জন ভর্তি আছেন। অন্যান্য বিভাগে বর্তমানে সর্বমোট ভর্তি রোগী ১ হাজার ৬১৮ জন।

এখন পর্যন্ত রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে (আইইডিসিআর) ডেঙ্গু সন্দেহে ২০৩টি মৃত্যুর তথ্য পাঠানো হয়েছে। এরমধ্যে সংস্থাটি ১০১টি ঘটনার পর্যালোচনা সমাপ্ত করে ৬০টি মৃত্যু ডেঙ্গুজনিত বলে নিশ্চিত করেছে।