• শনিবার, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫২ রাত

মিয়ানমারের দুই শতাধিক সিমকার্ডসহ তিন রোহিঙ্গা যুবক আটক

  • প্রকাশিত ০৮:৩৬ রাত সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৯
টেকনাফ রোহিঙ্গা সিম
মঙ্গলবার কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে মিয়ানমারের সিমকার্ডসহ তিন রোহিঙ্গা যুবককে আটক করা হয়। ঢাকা ট্রিবিউন

মিয়ানমার থেকে আসা একটি ট্রলারে করে রোহিঙ্গাদের ব্যবহারের জন্য সিমগুলো আনা হয়েছিল

কক্সবাজারের টেকনাফে মিয়ানমারের মোবাইল নেটওয়ার্ক সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের ২২২টি সিমকার্ডসহ তিন রোহিঙ্গা যুবককে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে টেকনাফ স্থলবন্দরের প্রধান ফটকে দায়িত্বরত আনসার সদস্যদের সহায়তায় তাদের আটক করে পুলিশ। 

আটক রোহিঙ্গারা হলেন- মিয়ানমারের মংডু বিচিডিল এলাকার নুরুল আলমের ছেলে নুর হাসান (২২), টেকনাফের নয়াপাড়া মুচনী রোহিঙ্গা শিবিরের হোসেনের ছেলে সলিম (২৬) ও উখিয়া জামতলী রোহিঙ্গা শিবিরের মেহের শরীফের ছেলে রবি আলম (২২)।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, টেকনাফ স্থলবন্দরে। খবর পেয়ে মঙ্গলবার ওই ট্রলারের মাঝিসহ তিন রোহিঙ্গা যুবকের পথরোধ করে বন্দরের নিরাপত্তাকর্মীরা। পরে থানা পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদেরকে আটক করে। তল্লাশি করে তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় মিয়ানমারেরর ‘এমপিটি’ নামের ২২২টি সিমকার্ড।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে টেকনাফ মডেল থানার ওসির প্রদীপ কুমার দাস ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, মিয়ানমারের থেকে নিয়ে আসা সিমকার্ডসহ তিন রোহিঙ্গাকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

উল্লেখ্য, অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড রোধে কক্সবাজারের টেকনাফ ও উখিয়া উপজেলার রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে সরকার সম্প্রতি মোবাইল নেটওয়ার্ক পরিসেবা সীমিত করার নির্দেশ দেয়। কিন্তু রোহিঙ্গারা মিয়ানমারের সিমকার্ড এনে বাংলাদেশে বসেই ব্যবহার করছে। মিয়ানমারের সিমকার্ড এদেশে আনার সহজ রুট হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে টেকনাফ স্থলবন্দরকে।