• বুধবার, নভেম্বর ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৪:৩৭ বিকেল

বগুড়ায় টাউন ক্লাবে পুলিশের অভিযান, সাধারণ সম্পাদকসহ আটক ১৫

  • প্রকাশিত ১০:৪০ রাত সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৯
টাউন ক্লাব
বগুড়ার টাউন ক্লাব। ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন

অভিযানের সময় ক্লাব থেকে টাকা ও জুয়ার সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বগুড়া শহরের টাউন ক্লাবে অভিযান চালিয়েছে পুলিশ। এ সময় জুয়া খেলার অভিযোগে ক্লাবের সাধারণ সম্পাদকসহ ১৫ জনকে আটক করা হয়েছে। 

শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) রাতে শহরের জিরোপয়েন্ট সাতমাথার টেম্পল রোডে অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী এ ক্লাবটিতে অভিযান চালানো হয়। অভিযান শেষে রাত সাড়ে ৯টার দিকে ক্লাবটিতে তালা দেওয়া হয়।

অভিযানের সময় ক্লাব থেকে টাকা ও জুয়ার সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বগুড়া সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রেজাউল করিম রেজা ও উপপরিদর্শক (এসআই) রহিমউদ্দিন জানান, শহরের সাতমাথায় টাউন ক্লাবে জুয়া খেলা চলছে এমন খবর পেয়ে শনিবার রাত ৯টার দিকে ওই ক্লাবে অভিযান চালানো হয়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে জুয়াড়িরা পালানোর চেষ্টা করেন। সেখান থেকে জুয়ার সরঞ্জাম ও ১ হাজার ৬০০ টাকাসহ ১৪ জুয়াড়িকে আটক করা হয়। এসময় জুয়া পরিচালনার অভিযোগে ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শামীম কামালকেও আটক করা হয়েছে। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন জানান, ১৮৯৬ সালে প্রতিষ্ঠিত টাউন ক্লাব আগে কিংবদন্তি খেলোয়ার তৈরি হতো। বড় কালুর মত বিখ্যাত ফুটবলারও এ ক্লাবের তৈরি। কিন্তু বেশ কয়েক বছর ধরে এ ক্লাবে কোন খেলাধুলা হয় না। সেখানে অবাধে জুয়ার আসর বসে। তরুণ থেকে বৃদ্ধ পর্যন্ত এখানে জুয়া খেলতে আসেন।

এ বিষয়ে বগুড়া জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাবেক সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম ফেসবুকে বলেন, "টাউন ক্লাব আগে ছিল খেলোয়াড় তৈরির কারখানা। এখন হয়েছে জুয়ার আসরের গ্যারেজ। আমরা চাই ক্লাবগুলো আবার খেলোয়াড়দের কলকাকলিতে ভরে উঠুক। আবার তৈরি হোক নতুন নতুন খেলোয়াড়।"