• শুক্রবার, ডিসেম্বর ০৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:১৪ সকাল

বিয়ে দিতে ব্যর্থ হয়ে ঘটকের আত্মহত্যা

  • প্রকাশিত ০৬:২৭ সন্ধ্যা সেপ্টেম্বর ২৭, ২০১৯
আত্মহত্যা
প্রতীকী ছবি

এমনকি বিয়ের জন্য মেয়ে পক্ষ ঘটকের কথা মতো ছেলেকে কিছু টাকা অগ্রিম পর্যন্ত দেয়। কিন্তু শুক্রবার বিয়ের নির্ধারিত দিনে ছেলের পরিবারের লোকজন বিয়েতে রাজি নয় বলে জানায়

ছেলে পক্ষ না আসায় অপমানিত হয়ে মাগুরার মহম্মদপুরের বাশো গ্রামে শাহিদুল ইসলাম (৩২) নামে এক ব্যক্তি আত্মহত্যা করেছেন।

শুক্রবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকালে এ ঘটনা ঘটে। শাহিদুল ইসলাম ওই গ্রামের ছুরমান শেখের ছেলে। সে পেশায় ঘটক ছিল।

স্থানীয় বাবুখালী ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য নাঈম হাসান বাবলু জানান, মাগুরার মহম্মদপুরের বাশো গ্রামের হাবি মোল্যার মেয়ে রুমির সাথে ফরিদপুর জেলার কোমরপুর গ্রামের দলিল উদ্দিন মোল্যার ছেলে সাবু মোল্যার বিয়ে ঠিক হয়। যার মধ্যস্থতাকারী ছিলেন ঘটক শাহিদুল ইসলাম। রুমি ও সাবুর মধ্যে আগে থেকেই সম্পর্ক ছিল বলে শোনা যায়। পাশাপাশি তারা নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে বিয়ে করেছে, এমন কাগজপত্র দেখিয়ে মেয়ে পক্ষকে বিয়েতে রাজি করান শাহিদুল। এমনকি বিয়ের জন্য মেয়ে পক্ষ ঘটকের কথা মতো ছেলেকে কিছু টাকা অগ্রিম পর্যন্ত দেয়। কিন্তু শুক্রবার বিয়ের নির্ধারিত দিনে ছেলের পরিবারের লোকজন বিয়েতে রাজি নয় বলে জানায়। এটি জেনে মেয়ে পক্ষ ঘটককে নানা ভাবে কটূক্তি করে। এ ছাড়া বিষয়টি নিয়ে ঘটক শাহিদুলের নিজের বাড়ির লোকজনও তাকে গালমন্দ করে। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে শুক্রবার সকালে নিজ বাড়ির পাশের একটি আম গাছে গলায় গামছা পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে শাহিদুল

মহম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারক বিশ্বাস বলেন, “পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে। আত্মহত্যার কারণ জানার চেষ্টা করছে পুলিশ।”