• শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫২ রাত

সড়কের অপেক্ষায় ১৮ বছর ধরে দাঁড়িয়ে থাকা এক সেতু

  • প্রকাশিত ০৯:৫৫ রাত অক্টোবর ২, ২০১৯
সিলেট/সেতু
কেন বা কার স্বার্থে লাখ লাখ টাকা ব্যয় করে সেতুটি নির্মাণ করা হয়েছিল তা এক রহস্যই রয়ে গেছে এলাকাবাসীর কাছে। ছবি: ইউএনবি

২০০১ সালে মাটিজুড়া নদীর ওপর সেতুটি নির্মাণ করা হয়েছিল। কিন্তু আজ পর্যন্ত রাস্তা না হওয়ায় নির্মিত সেতু দিয়ে এলাকার মানুষ চলাচল করতে পারছে না

সেতুটির বয়স ১৮ বছর। কিন্তু যে সড়ক দিয়ে সেতুটিতে উঠতে হবে তা আজও নির্মাণ হয়নি। সড়ক নির্মাণের আগেই নির্মিত হয়েছিল সেতু। তাই এখন দূর থেকে দাঁড়িয়ে দেখতে হয় সংযোগ সড়কবিহীন সেতুটি।

সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের খালিটেকা মীরেরগাঁও গ্রামের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া মাটিজুড়া নদীর পশ্চিম হালঘাটা নামক স্থানে অনেক প্রত্যাশিত ব্রিজটি নির্মাণ করা হয়েছিল।

রাস্তা নেই তবু তৈরি করা হয়েছে লাখ লাখ টাকা ব্যয় করে সেতু। কেন বা কার স্বার্থে ওই সেতুটি নির্মাণ করা হয়েছে উত্তর খুঁজে পাচ্ছেন না এলাকাবাসী। সেতু তৈরি করা হলেও জনগণের কোনো কাজে আসছে না। কারণ রাস্তা তৈরি না করেই সেতু নির্মাণ করায় এক পায়ে দাঁড়িয়ে আছে সেতু।

ব্রিজের চারদিকেই পানি, নেই কোনো রাস্তা। ব্রিজের দুপাশে মাটি ভরাট ও রাস্তা তৈরি করে জনগণের চলার উপযোগী করে তোলা হলে সেখানে মানুষ উপকার পেত।

২০০১ সালের প্রথম দিকে খালিটেকা মীরেরগাঁও গ্রামের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া মাটিজুড়া নদীর পশ্চিমে হালঘাটা নামক স্থানে সেতুটি নির্মাণ করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

এব্যাপারে দৌলতপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আবদুল মজিদ বলেন, “২০০১ সালে মাটিজুড়া নদীর ওপর সেতুটি নির্মাণ করা হয়েছিল। কিন্তু আজ পর্যন্ত রাস্তা না হওয়ায় নির্মিত সেতু দিয়ে এলাকার মানুষ চলাচল করতে পারছে না।”