• সোমবার, নভেম্বর ১৮, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:৩৪ দুপুর

রিফাত হত্যাকাণ্ড: পলাতক আট আসামির সম্পত্তি জব্দের নির্দেশ

  • প্রকাশিত ০২:১৭ দুপুর অক্টোবর ৩, ২০১৯
রিফাত শরীফ
বরগুনায় নিহত রিফাত শরীফ। ছবি: সংগৃহীত

মামলার তারিখ অনুযায়ী কারাগারে থাকা সাত আসামিকে বৃহস্পতিবার আদালতে হাজির করা হয়েছিলো। জামিনে থাকা আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি এবং আরিয়ান শ্রাবণও আদালতে হাজির হয়েছিলেন

বরগুনার আলোচিত শাহনেওয়াজ রিফাত (রিফাত শরীফ) হত্যা মামলায় পলাতক ৮ আসামির মালিকানাধীন সম্পত্তি জব্দের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। একইসঙ্গে মামলায় কারাগারে থাকা রিফাত ফরাজীসহ দুইজনের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন বিচারক।

বৃহস্পতিবার (৩ অক্টোবর) বেলা ১১টায় বরগুনার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক সিরাজুল ইসলাম গাজী এ আদেশ দেন। মামলার পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে ১৬ অক্টোবর।

বাদীপক্ষের আইনজীবী অ্যাড. মজিবুল হক কিসলু ঢাকা ট্রিবিউনকে জানান, মামলার তারিখ অনুযায়ী কারাগারে থাকা সাত আসামিকে বৃহস্পতিবার আদালতে হাজির করা হয়েছিলো। জামিনে থাকা আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি এবং আরিয়ান শ্রাবণও আদালতে হাজির হয়েছিলেন। এসময় রিফাত ফরাজী ও টিকটক হৃদয়ের জামিন আবেদন করা হলে শুনানি শেষে তা নামঞ্জুর করে আদালত।

পরে রিফাত হত্যা মামলায় চার্জশিটভুক্ত পলাতক আসামি মোহাইমিনুল ইসলাম সিফাত, মুসা বন্ড, রিফাত হাওলাদার, রায়হান, নাঈম, রাকিবুল হাসান নিয়ামত, সাঈদ মারুফ বিল্লাহ ও প্রিন্স মোল্লার সম্পত্তি ক্রোকের নির্দেশ দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, গত ১ সেপ্টেম্বর রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিসহ ২৪ জনের বিরুদ্ধে বরগুনার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দেয় পুলিশ। রিফাত হত্যা মামলার প্রধান আসামি নয়ন বন্ড কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হওয়ায় তাকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এখন পর্যন্ত এ মামলায় ১৫ জনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ। গ্রেফতারদের মধ্যে ছয় কিশোর অপরাধী শিশু-কিশোর সংশোধনাগারে রয়েছে। আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিসহ জামিনে রয়েছেন দুইজন।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ জুন সকাল সোয়া ১০টার দিকে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয় রিফাত শরীফকে। ঘটনাস্থলের কাছে থাকা একটি সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা যায়, রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি আপ্রাণ চেষ্টা করেও হামলাকারীদের দমাতে পারেননি। গুরুতর আহত অবস্থায় রিফাতকে ওইদিনই বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

এ ঘটনায় রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতনামা পাঁচ-ছয়জনকে আসামি করে বরগুনা সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।