• রবিবার, ডিসেম্বর ০৮, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:৩২ রাত

মোহাম্মদপুরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে বিহারি তরুণের চোখে গুলি

  • প্রকাশিত ০৬:৫৭ সন্ধ্যা অক্টোবর ৫, ২০১৯
পুলিশ
রাজধানীর মোহাম্মদপুরের জেনেভা ক্যাম্পে শনিবার পুলিশ ও র‍্যাবের সঙ্গে বিহারিরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। মাহমুদ হোসেন অপু/ঢাকা ট্রিবিউন

মেডিকেল অফিসার মৌসুমি সুলতানা জেরিন বলেন, 'তার (রকি) চোখটি অনেকটা বাইরের দিকে বেরিয়ে এসেছে' 

রাজধানীর মোহাম্মদপুরের জেনেভা ক্যাম্পে পুলিশ ও র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) সঙ্গে সংঘর্ষে মো. রকি হোসেন (২২) নামের বিহারি এক তরুণ চোখে গুলি লেগে আহত হয়েছেন।  

শনিবার (৫ অক্টোবর) দুপুর আড়াইটার দিকে ওই তরুণকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। জরুরি বিভাগে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাকে চক্ষু বিভাগে পাঠানো হয়।

আহত রকি পেশায় একজন মোটরসাইকেল মেকানিক। তার বাসা জেনেভা ক্যাম্পে। রকির বাবা ভুট্ট মিয়া একজন রিকশাচালক। 

ঢামেক হাসপাতালে চক্ষু বিভাগের মেডিকেল অফিসার মৌসুমি সুলতানা জেরিন বলেন, "তার (রকি) ডান চোখের অবস্থা খুবই খারাপ। আমরা দেখেছি তার চোখটি অনেকটা বাইরের দিকে বেরিয়ে এসেছে। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বিস্তারিত বলা যাবে। আমরা তাকে চক্ষু বিজ্ঞান ইনিস্টিউটে পাঠিয়ে দিয়েছি।"  রাজধানীর মোহাম্মদপুরের জেনেভা ক্যাম্পে পুলিশের গাড়ি ভাঙচুর করে বিহারি আন্দোলনকারীরা। ছবি : মাহমুদ হোসেন অপু/ঢাকা ট্রিবিউনরকির খালাতে ভাই মিঠু বলেন, রকি জেনেভা ক্যাম্প এলাকায় একটি মোটরসাইকেল গ্যারেজে কাজ করেন। তিনি আন্দোলনকারীদের মধ্যে ছিলেন না। সংঘর্ষ চলার সময় গুলি এসে তার চোখে লাগে। তিনি এখন চক্ষু বিজ্ঞান ইনিস্টিউটে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এর আগে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে গজনবী রোডে অতিরিক্ত লোডশেডিংকে কেন্দ্র করে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবিতে অবস্থান নেয় বিহারিরা। এ সময় পুলিশ বাধা দিলে তারা টায়ারে আগুন দেয় এবং পুলিশের দিকে ইট-পাটকেল ছোড়ে। জবাবে পুলিশও টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে। বিহারি-পুলিশ সংঘর্ষে জেনেভা ক্যাম্পের আশপাশের বাসিন্দাদের মধ্যে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়।

এদিকে দুপুর ৩টার পর পুলিশ বিহারি ক্যাম্পের বিভিন্ন বাসা ও দোকানে অভিযান শুরু করে। এ সময় পুলিশ সদস্যদের গুলি করতে দেখা যায় বলে ঘটনাস্থল থেকে জানিয়েছেন ঢাকা ট্রিবিউনের প্রতিবেদক।   ঘটনাস্থলে বিপুল পরিমাণ পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

বিহারিদের অভিযোগ, রাস্তায় অবস্থানকারী বিহারিদের "শান্তিপূর্ণ" আন্দোলনে ওপর স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলরের নির্দেশে হামলা চালায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।