• শুক্রবার, এপ্রিল ০৩, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩৭ রাত

'ওই ছেলে সড়ক নির্মাণের কী বোঝে, তাই উত্তম-মধ্যম দিয়েছি'

  • প্রকাশিত ০৩:০৭ বিকেল অক্টোবর ৮, ২০১৯
লক্ষ্মীপুর
লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ রাস্তার উন্নয়ন কাজে অনিয়মের প্রতিবাদ করায় মো. রাসেল হোসেন নামের এক কলেজছাত্রকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। ঢাকা ট্রিবিউন

ইউপি মেম্বার নুরুল আমিন বলেন, 'ওই ছেলে সড়ক নির্মাণ কাজের কী বোঝে? আমার কাজে বাধা দেওয়ায় কিছু উত্তম-মধ্যম দিয়ে ছেড়ে দিয়েছি' 

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলায় স্থানীয় সরকার বিভাগের বাস্তবায়নাধীন লোকাল গভর্ন্যান্স সাপোর্ট প্রজেক্টের (এলজিএসপি) রাস্তার উন্নয়ন কাজে অনিয়মের প্রতিবাদ করায় মো. রাসেল হোসেন নামের এক কলেজছাত্রকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। 

মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) সকালে উপজেলার ২ নম্বর নোয়াগাঁও ইউনিয়নের আশারকোট গ্রামের মোহাম্মদিয়া মাদরাসার সামনে এ ঘটনা ঘটে।

আহত রাসেল উপজেলার দল্টা কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র। তাকে উদ্ধার করে রামগঞ্জ সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ২নম্বর নোয়াগাঁও ইউনিয়নের আশারকোটা গ্রামের হাজী বাড়ির সামনে এলজিএসপি প্রকল্পের ২ লাখ টাকা ব্যায়ে ৬০০ ফুট রাস্তায় সলিংয়ের কাজ করার কথা ছিল। কিন্তু নোয়াগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) মেম্বার নুরুল আমিন পুরোনো ইট দিয়ে রাস্তার নির্মাণ করতে গেলে রাসেল হোসেন প্রতিবাদ করে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মেম্বার তাকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। এছাড়া তার সঙ্গে সাথে থাকা মোবাইল ফোন, সোনার চেইন ও টাকা লুটপাট করে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় রাসেল বাদী হয়ে নুরুল আমিনকে আসামি করে রামগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে।

এ ব্যাপারে নুরুল আমিন বলেন, "রাসেল কলেজে পড়ে। ওই ছেলে সড়ক নির্মাণ কাজের কী বোঝে? আমার কাজে বাধা দেওয়ায় কিছু উত্তম-মধ্যম দিয়ে ছেড়ে দিয়েছি।" 

রামগঞ্জ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনোয়ার হোসেন জানান, অভিযোগের আলোকে নুরুল আমিনের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।