• শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫৬ রাত

দীপন হত্যার বিচার শুরু

  • প্রকাশিত ০৬:১০ সন্ধ্যা অক্টোবর ১৩, ২০১৯
প্রকাশক ফয়সল আরেফীন দীপন
প্রকাশক ফয়সল আরেফীন দীপন। ফাইল ছবি

মামলার আসামিরা সবাই নিষিদ্ধঘোষিত জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামের নেতা বা সদস্য 

প্রকাশক ফয়সল আরেফীন দীপন হত্যা মামলায় আটজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। রোববার (১৩ অক্টোবর) সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালের বিচারক মজিবুর রহমান এ আদেশ দেন।

অভিযোগ গঠনের পর আগামী ১৮ নভেম্বর সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য করেছেন আদালত। 

দীপন হত্যা মামলার আট আসামির মধ্যে গ্রেফতার ছয় আসামিকে আদালতে হাজির করে তাদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ পড়ে শোনানো হয়। এ সময় আসামিরা নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন এবং ন্যায়বিচার চান। 

এর আগে গত ২০ মার্চ প্রকাশক দীপন হত্যা মামলায় আটজনের বিরুদ্ধে দেওয়া অভিযোগপত্র গ্রহণ করেন আদালত।

মামলার গ্রেফতার হওয়া আসামিরা হলেন-খাইরুল ইসলাম ওরফে জামিল, মো. শেখ আবদুল্লাহ ওরফে জুবায়ের, মইনুল হাসান শামীম ওরফে সিফাত, মো. আবু সিদ্দিক সোহেল ওরফে সাকিব, মো. মোজাম্মেল হুসাইন ওরফে সায়মন ও মো. আবদুস সবুর ওরফে সামাদ।

মামলার পলাতক দুই আসামি হলেন-চাকরিচ্যুত মেজর সৈয়দ জিয়াউল হক ওরফে মেজর জিয়া ও আকরাম হোসেন ওরফে হাসিব। মামলার আসামিরা সবাই নিষিদ্ধঘোষিত জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামের নেতা বা সদস্য।

গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে সিফাত দীপন হত্যায় নিজের ভূমিকা স্বীকার করেছেন এবং ব্লগারদের হত্যায় মেজর জিয়ার বিভিন্ন কর্মকাণ্ড সম্পর্কে তথ্য দিয়েছেন। 

২০১৮ সালের ১৫ নভেম্বর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ঢাকা মূখ্য মহানগর হাকিমের কাছে আটজনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন। 

এর আগে, ২০১৫ সালের ৩১ অক্টোবর শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেটে জাগৃতী প্রকাশনীর কার্যালয়ে ঢুকে দীপনকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। প্রায় একই সময়ে লালমাটিয়ায় শুদ্ধস্বর প্রকাশনীর কার্যালয়ে ঢুকে প্রতিষ্ঠানটির স্বত্বাধিকারী আহমেদুর রশীদ, লেখক সুদীপ কুমার ওরফে রণদীপম বসু ও প্রকৌশলী আবদুর রহমানকে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যার চেষ্টা করে দুর্বৃত্তরা।