• শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫৬ রাত

১৪ দিনের শিশুসন্তানকে পুকুরে ফেলে হত্যা করলেন মা

  • প্রকাশিত ০৭:১৮ রাত অক্টোবর ১৩, ২০১৯
শিশুমৃত্যু
প্রতীকী ছবি।

দুপুরে বাড়ির সবার অগোচরে নিজের শিশুসন্তান জামিলাকে পাশের একটি পুকুরে ফেলে দেন মা ময়না আক্তার

মাদারীপুরের কালকিনি পৌর এলাকার দক্ষিন ঠেঙ্গামাড়া গ্রামে নিজের ১৪ দিনের শিশুসন্তানকে পুকুরে ফেলে হত্যার দায়ে ময়না আক্তার (২২) নামে এক নারীকে আটক করেছে পুলিশ। এর আগে রবিবার (১৩ অক্টোবর) বিকেলে শিশু জামিলার লাশ উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ ও স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, অভিযুক্ত ময়না আক্তারের স্বামী সুজন সরদার দীর্ঘদিন দেশের বাইরে ছিলেন। দেশে ফিরে আসার পর স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বিভিন্ন বিষয়ে বিরোধ শুরু হয়। এর জের ধরে রবিবার দুপুরে বাড়ির সবার অগোচরে নিজের শিশুসন্তান জামিলাকে পাশের একটি পুকুরে ফেলে দেন ময়না।

পরে পুকুরে ওই শিশুর মৃতদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন স্থানীয়রা। পুলিশ এসে নবজাতকের লাশ উদ্ধার করেন। পরে পরিবারের লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে নবজাতক জামিলাকে পুকুরে ফেলে দেওয়ার কথা স্বীকার করেন মা ময়না আক্তার। এর প্রেক্ষিতে পুলিশ তাকে আটক করে।

জামিলার বাবা সুজন বলেন, "আমরার সংসারে কোন অভাব নাই। আমার স্ত্রী কেন যে এ ঘটনা ঘটিয়েছে তা আমার জানা নেই।"

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কালকিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোফাজ্জেল হোসেন বলেন, "নবজাতককে পুকুরের পানিতে ফেলে দেওয়ার কথা শিশুটির মা স্বীকার করেছেন। তাকে আটক করা হয়েছে। তবে কেন হত্যা করেছেন, সে বিষয়ে তিনি মুখ খুলছেন না। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।"