• শুক্রবার, নভেম্বর ১৫, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৬ রাত

নরসিংদীতে নাতির হাতুড়ির আঘাতে নানির মৃত্যু

  • প্রকাশিত ০৩:২৬ বিকেল অক্টোবর ১৮, ২০১৯
নরসিংদী

নানির মৃত্যু নিশ্চিত বুঝে অনুশোচনা থেকে সে ফোন করে পুলিশকে ঘটনা জানায়

ভাত দিতে দেরি হওয়ায় কিশোর নাতির হাতুড়ির আঘাতে মারা গেছেন ফুলমালা বেগম (৬০) নামে এক নারী। হত্যাকাণ্ডের পর ওই কিশোর নিজেই ফোন করে পুলিশকে বিষয়টি জানায়। তাকে আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে নরসিংদীর মাধবদী উপজেলার কুড়েরপাড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মাধবদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু তাহের দেওয়ান ঢাকা ট্রিবিউনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

স্থানীয় ইউপি সদস্য সেলিম মিয়া ও পুলিশের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, স্বামীর মৃত্যুর ওই নারী তার নাতিকে বাড়িতে নিয়ে আসেন। নানীর কাছে থেকেই সে মাধ্যমিক পাস করে বর্তমানে স্থানীয় একটি কলেজে পড়শোনা করছে।

বৃহস্পতিবার রাতে দেরি করে বাড়ি ফেরায় নানি তাকে বকাঝকা করেন। রাতের খাবার দিতে দেরি হওয়ায় ওই কিশোর তার নানির পিঠে ঘুষি দেয়। এতে ওই নারী ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে লাথি মারেন। ক্ষুব্ধ হয়ে ওই কিশোর হাতুড়ি নিয়ে নানীর মাথা ও মুখে এলোপাথাড়ি আঘাত করে। এতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

নানির মৃত্যু নিশ্চিত বুঝে অনুশোচনা থেকে সে ফোন করে পুলিশকে ঘটনা জানায়। খবর পেয়ে রাতেই মাধবদী থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে। এসময় অভিযুক্ত কিশোরকে আটক করে নিয়ে যায় পুলিশ।

মাধবদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু তাহের দেওয়ান বলেন, মূলত ভাত দিতে দেরি হওয়াকে কেন্দ্র করে তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। প্রথমে ওই কিশোর তার নানিকে আঘাত করে। পরে ওই নারী রাগের মাথায় তাকে লাথি দেন। এ ঘটনায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।