• বুধবার, ডিসেম্বর ১১, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:১৮ রাত

মাদকবিরোধী অভিযানের সময় হামলা, ৬ পুলিশ আহত

  • প্রকাশিত ১০:০৮ রাত অক্টোবর ১৯, ২০১৯
আহত-পুলিশ
সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলায় মাদক কারবারীদের হামলায় ছয় পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। ইউএনবি

আটক আসামিদের ছিনিয়ে নিতেই পুলিশের ওপর হামলা চালানো হয় বলে জানিয়েছেন সিলেট জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) মো. আমিনুল ইসলাম

সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলায় মাদক কারবারীদের হামলায় ছয় পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। শুক্রবার (১৮ অক্টোবর) রাতে উপজেলার সীমান্তবর্তী সাইট্রাস গবেষণাকেন্দ্রে এই হামলার ঘটনা ঘটে বলে ইউএনবি'র একটি খবরে বলা হয়।

আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন- উপ-পরিদর্শক(এসআই) আজিজুর রহমান, সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) রায়হান কবির, সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) রুবেল দাশ, কনস্টেবল তপু নাথ, সাইফুল ইসলাম ও জামাল আহমদ। এদের মধ্যে এসআই আজিজুর ও কনস্টেবল জামালকে রাতেই সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে ঘটনাস্থল থেকে ইয়াবা ব্যবসায়ীসহ তিনজনকে আটক করা হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে। আটক ব্যক্তিরা হলেন- উপজেলার নিজপাট কমলাবাড়ী গ্রামের মৃত আব্দুল কাদির মেম্বারের ছেলে জামাল উদ্দিন (৩৫), তার সহোদর কামাল উদ্দিন (৪০) ও আব্দুল হান্নান (২৭)।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, জৈন্তাপুর থানা পুলিশের একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সাইট্রাস গবেষণাকেন্দ্রে অভিযান চালিয়ে ৩০ পিস ইয়াবাসহ তিন মাদক কারবারিকে আটক করে। এসময় তাদের ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টায় অন্য মাদককারাবারীরা পুলিশের ওপর হামলা করে। এতে ছয় পুলিশ সদস্য আহত হন। খবর পেয়ে জৈন্তাপুর থানা থেকে পুলিশের আরও কয়েকটি টিম ঘটনাস্থলে পৌঁছে হামলা প্রতিহত করতে শর্টগানের গুলি ছোড়ে।

এ ব্যাপারে জৈন্তাপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল বণিক বলেন, "পুলিশের টহল টিম মাদক কারবারীদের আটককালে হামলার ঘটনা ঘটে। পরে থানা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছালে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় আটক জামাল উদ্দিনের বিরুদ্ধে মাদক আইনে একাধিক মামলা রয়েছে। আটকদেরকে মাদক আইনে মামলা ও পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় আরেকটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।"

সিলেট জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, "পুলিশের কাছ থেকে আসামি ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করা হয়। তবে আটকদের শেষপর্যন্ত থানায় নিয়ে আসতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ।"