• মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:২১ রাত

পরীক্ষায় জালিয়াতি: এমপি বুবলী স্থায়ী বহিষ্কার

  • প্রকাশিত ০৯:৫৩ রাত অক্টোবর ২০, ২০১৯
নরসিংদীর সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি তামান্না নুসরাত বুবলী
নরসিংদীর সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি তামান্না নুসরাত বুবলী। ছবি: সংগৃহীত

তার হয়ে ৮ জন পরীক্ষায় প্রক্সি দেওয়ায় এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাউবি

নরসিংদীর সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) তামান্না নুসরাত বুবলীর সব পরীক্ষা ও রেজিস্ট্রেশন বাতিল করে তাকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করেছে বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (বাউবি) প্রশাসন। বাউবি'র আওতাধীন বিএ পরীক্ষায় জালিয়াতির আশ্রয় নেয়ায় তাকে বহিষ্কার।

রবিবার (২০ অক্টোবর) সকালে উপাচার্য (ভিসি) অধ্যাপক ড. এম এ মান্নানের সভাপতিত্বে বাউবি ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত এক সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সভায় বুবলীর সব পরীক্ষা ও রেজিস্ট্রেশন বাতিলসহ তাকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এছাড়াও এ ঘটনার তদন্তে বাউবির পক্ষ থেকে সামাজিক বিজ্ঞান বিভাগের ডিন অধ্যাপক ড. মো. জাহাঙ্গীর আলমকে প্রধান করে চার সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয় সভায়। আগামী ৩ কার্যদিবসের মধ্যে কমিটিকে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে।

জানা যায়, নির্বাচনী হলফনামায় এমপি বুবলী তার শিক্ষাগত যোগ্যতা হিসেবে এইচএসসি পাস দেখান। কিন্তু নিজের শিক্ষাগত যোগ্যতা বাড়িয়ে নিতে বাউবির বিএ কোর্সে ভর্তি হন তিনি। তবে, পরীক্ষা শুরু হলে তার জায়গায় ৮ জন পরীক্ষা দেন। নরসিংদীতে পরীক্ষার কেন্দ্র হলেও সংরক্ষিত মহিলা আসনের এই এমপি পরীক্ষা চালাকালীন সময়ে ঢাকাতেই অবস্থান করেন।

প্রথম ৭টি পরীক্ষায় ধরা না পড়লেও শেষ দিনের পরীক্ষায়  তার হয়ে প্রক্সি দিতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়েন একজন। এরপর বিষয়টি গণমাধ্যমে আসলে নড়েচড়ে বসে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এর প্রেক্ষিতে এমন সিদ্ধান্ত এলো।

উপাচার্য ড. এম এ মান্নান বলেন, "বুবলীর এ ধরনের কাজ বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম নষ্ট করেছে। তিনি বাউবির কোনো প্রোগ্রামেই আর কখনও ভর্তি হতে পারবেন না। এ ধরনের কাজ একটি ঘৃণিত ও গর্হিত অপরাধ। যারা তার হয়ে প্রক্সি দিয়েছে তাদের পরিচয়প্রাপ্তি সাপেক্ষে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হবে।"

উল্লেখ্য, এমপি তামান্না নুসরাত বুবলী নরসিংদীর প্রয়াত পৌর মেয়র লোকমান হোসেনের স্ত্রী। ২০১১ সালের ১ নভেম্বর লোকমান হোসেন দলীয় কার্যালয়ে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন।