• সোমবার, নভেম্বর ১৮, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:৩৪ দুপুর

শ্রীমঙ্গলের প্রকৃতিতে শীতের আমেজ

  • প্রকাশিত ০৯:২৯ রাত অক্টোবর ২৩, ২০১৯
শীত
শ্রীমঙ্গলজুড়ে ভোরে মিলছে কুয়াশার দেখা। ঢাকা ট্রিবিউন

সন্ধ্যার পর থেকে সকাল ৮টা পর্যন্ত ঘন কুয়াশা আচ্ছন্ন করে রাখছে শ্রীমঙ্গলের প্রকৃতিকে। কার্তিকের এই সময়ে শীতলতা প্রকৃতিতে জেঁকে বসছে

কয়েক দিন ধরেই সন্ধ্যার পর থেকে পরদিন সকাল পর্যন্ত কিছুটা শীত শীত ভাব অনুভূত হচ্ছে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে। দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত গরম থাকলেও রাতে মিলছে শীতের আমেজ। আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগার সূত্র বলছে, শ্রীমঙ্গলে শীত পড়তে শুরু করেছে। এ মাসের শেষ দিকে পুরোদমে শীতের আমেজ পাওয়া যাবে।

সন্ধ্যার পর থেকে সকাল ৮টা পর্যন্ত ঘন কুয়াশা আচ্ছন্ন করে রাখছে শ্রীমঙ্গলের প্রকৃতিকে। কার্তিকের এই সময়ে শীতলতা প্রকৃতিতে জেঁকে বসছে।

শ্রীমঙ্গলের কুয়াশাভেজা সকাল যেন গ্রাম বাংলারই প্রতিচ্ছবি। ঢাকা ট্রিবিউন

প্রতিবছরই শীত উৎসবের আমেজ নিয়ে আসে। তবে এর তীব্রতা বাড়লে জীবনযাত্রা বিপন্নও হয় প্রান্তিক মানুষের। বিশেষ করে, দরিদ্রেরা পর্যাপ্ত শীতবস্ত্রের অভাবে দুর্ভোগের শিকার হন। গৃহহীন, ছিন্নমূলেরাও অসহনীয় কষ্টের শিকার হয়। এ সময় শীতজনিত নানা রোগও দেখা দেয়।

বুধবার সকালে শ্রীমঙ্গল হাইলহাওর এলাকার রাস্তায় কথা হয় পথচারী সোহেল মিয়ার সঙ্গে। তিনি বলেন, “এবার একটু আগেই শীত পড়তে শুরু করেছে। ঘন কুশায়ার কারণে প্রতিদিন সকালে হাঁটতে বের হই।”

ধানের ওপর জমেছে কুয়াশা। ঢাকা ট্রিবিউন

ভাড়াউড়া জেমস ফিনলে টি কোম্পানির ডিজিএম গোলাম শিবলী ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “ঘুন কুশায়ার কারণে একটু শীতের আমেজ দেখা দিয়েছে। বেশি শীত পড়াটা চায়ের জন্য ক্ষতিকর। শীত না আসাটাই ভালো। এবার কিন্তু চায়ের উৎপাদন ভালো।”

শ্রীমঙ্গল আবহওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনিছুর রহমান ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “শ্রীমঙ্গল পাহাড়ি এলাকায় হওয়ায় শীতের প্রভাব একটু বেশি লক্ষ্য করা যায়। আজ (বুধবার) সকালে তাপমাত্রা ২২ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল।”