• বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:১৮ রাত

মার্কেট দখলের অভিযোগে যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা

  • প্রকাশিত ১০:২৭ সকাল অক্টোবর ২৮, ২০১৯
যুবলীগ নেতা
আশুলিয়া থানা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও ধামসোনা ইউনিয়ন পরিষদের ৭ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মঈনুল ইসলাম ভুইয়া। ছবি: সংগৃহীত

এমনকি, বিভিন্ন সময়ে মার্কেটের আড়তদারদের মারধর করে তাদের মালামাল লুট করেছেন বলেও অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে

আশুলিয়ায় দোকানপাট ভাঙচুর করে ৭৬ লাখ ৯২ হাজার টাকার মালামাল লুট ও মার্কেট দখলের অভিযোগে যুবলীগ নেতাসহ ১৪ জনের নামে মামলা দায়ের করা হয়েছে। রবিবার (২৭ অক্টোবর) দোকানপাট ভাঙচুর করে  রাত দশটার দিকে এম এ খান মার্কেটের মালিক আলমগীর খান বাদী হয়ে মামলা করেন।

মামলায় আশুলিয়া থানা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও ধামসোনা ইউনিয়ন পরিষদের ৭ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মঈনুল ইসলাম ভুইয়াকে প্রধান আসামি করে আরও তিনজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ১০জনকে আসামি করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিজাউল হক দিপু।

মামলার অভিযোগ সূত্রে জানা, বাইপাইল এলাকায় ৩৯ শতাংশ জমি কিনে এম এ খান নামে একটি মার্কেট বানিয়ে কাচামালের আড়ৎ হিসেবে ভাড়া দিয়ে আসছিলেন আলমগীর খান। কিন্তু গত কয়েক মাস ধরে যুবলীগ নেতা মঈনুল তার লোকজন নিয়ে ওই মার্কেট দখল করার পাঁয়তারা চালাচ্ছিলেন। এমনকি, বিভিন্ন সময়ে মার্কেটের আড়তদারদের মারধর করে তাদের মালামাল এই যুবলীগ নেতা লুট করেছেন বলেও অভিযোগে বলা হয়। গত ৬ সেপ্টেম্বর ওই যুবলীগ নেতা দেশীয় অস্ত্রসহ তার বাহিনী নিয়ে এসে ওই মার্কেটে হামলা চালান। এসময় আড়তদারদের মারধর করে ৭৬ লাখ ৯২ হাজার টাকার মালামল লুট করা হয়। পরে এঘটনায় মার্কেটের মালিক আলমগীর খান বাদী হয়ে রবিবার রাতে আশুলিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

আশুলিয়া থানার ওসি রিজাউল হক দিপু বলেন, "লুটপাট, ভাঙচুর ও মার্কেট দখলের চেষ্টার অভিযোগে যুবলীগ নেতাসহ চারজনের নামে মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভিযুক্তদের গ্রেফতারে অভিযান চালানো হচ্ছে।"