• রবিবার, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪২ রাত

জাবি অধ্যাপকের বিরুদ্ধে অসৌজন্যমূলক আচরণের অভিযোগ নারী শিক্ষকের

  • প্রকাশিত ০৮:০৬ রাত অক্টোবর ২৯, ২০১৯
জাবি
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার। সংগৃহীত

এ ঘটনায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য উপাচার্য বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ভুক্তভোগী ওই অধ্যাপক

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ইতিহাস বিভাগের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে অসৌজন্যমূলক আচরণের অভিযোগ এনেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণীবিদ্যা বিভাগের অপর এক নারী শিক্ষক।

এ ঘটনায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য উপাচার্য বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ভুক্তভোগী ওই অধ্যাপক।

লিখিত অভিযোগে তিনি বলেন, “এ বছর ২৯ আগস্ট বেলা আড়াইটায় ইতিহাস বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক আতিকুর রহমান উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের বাসভবনের অফিস কক্ষে আমার সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন। সে সময় সেখানে পদার্থ বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক এ এ মামুন, পরিসংখ্যান বিভাগের অধ্যপক এম এ মতিন ও উপাচার্য অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।”

মঙ্গলবার (২৯ অক্টোবর) এ বিষয়ে জানতে তার সাথে যোগাযোগ করা হলে ওই শিক্ষক বলেন, “আমি দেশের বাইরে যাওয়ার জন্য এনওসি ফরম আনতে উপাচার্যের বাসার অফিস কক্ষে গেলে সেখানে অধ্যাপক আতিককে ওই অফিসের কম্পিউটারে কাজ করতে দেখি। তখন তার কাজের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি উত্তেজিত হয়ে উঠেন। এবং আমাকে নানা বিষয় নিয়ে হেনস্থা করতে থাকেন।”

“এক সময় হাত নেড়ে নেড়ে প্রাণিবিদ্যা বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক মোস্তফা ফিরোজের দুর্নীতি নিয়ে কেন আমি বলে বেড়াচ্ছি তা জানতে চান। তর্ক-বিতর্কের একপর্যায়ে তিনি আমাকে দেখে নেবেন বলে জানান। এমন অসৌজন্যমূলক আচরণের কারণেই আমি উপাচার্য বরাবর অভিযোগ দিয়েছি,” বলেন তিনি।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক অধ্যাপক আতিকুর রহমান বলেন, “তিনি আমাকে আঘাত করে কথা বলেছেন। তাই আমি একটু উত্তেজিত হয়ে পড়েছিলাম। পরে তার সাথে কথা বলে বিষয়টি সমঝোতার চেষ্টা করা হয়েছে।”

এদিকে ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাইলে অধ্যাপক এ এ মামুন বেশি কিছু বলতে রাজি হননি। তিনি বলেন, “অনেক আগের ঘটনা তো, তাই স্পষ্ট মনে নেই কী ঘটেছিল।”