• রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:০০ দুপুর

নওগাঁয় একদিনে মাদ্রাসার ২ শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ

  • প্রকাশিত ০৭:৩০ রাত নভেম্বর ১, ২০১৯
ধর্ষণ
প্রতীকী ছবি

এই ঘটনায় ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ

একই দিনে নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলার পৃথক গ্রামে দুই মাদ্রাসা শিক্ষার্থী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে এই ঘটনা ঘটে বলে নিশ্চিত করেছেন ধামইরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জাকিরুল ইসলাম।

পুলিশ এই ঘটনায় দুই যুবককে আটক করেছে বলে ইউএনবি'র একটি খবরে বলা হয়। আটক দুই ব্যক্তি হলেন- উপজেলার বড়থা গ্রামের আব্দুস ছাত্তারের ছেলে হেলাল হোসেন (২৫) ও বৈদ্যবাটি এলাকার সাবের আলীর ছেলে মাহফুজুর রহমান (২৮)।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে মাদ্রাসা ছুটির পরে বাড়ি ফেরার পথে বড়থা-কাজিপুর গ্রামের ধান খেতের মাঠে সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রীকে হেলাল জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ সময় মেয়েটির চিৎকারে কৃষকরা এগিয়ে আসলে ধর্ষক পালিয়ে যায়। পরে মেয়েটি তার পরিবারকে বিষয়টি জানালে তারা পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ স্থানীয়দের সহযোগিতায় ধর্ষক হেলালকে আটক করে। এ ব্যাপারে বৃহস্পতিবার রাতে ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে ধামইরহাট থানায় মামলা দায়ের করেন।

এদিকে, একইদিন উপজেলার অন্য একটি গ্রামে ৯ম শ্রেণির মাদরাসার ছাত্রীকে একা পেয়ে মাহফুজুর রহমান প্রতিবেশীর বাড়িতে কৌশলে ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। মেয়েটির চিৎকারে স্থানীয়রা ধর্ষক মাহফুজুর রহমানকে হাতে নাতে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে ধামইরহাট থানায় মামলা দায়ের করেন।

ওসি মো. জাকিরুল ইসলাম বলেন, "পৃথক দুটি ধর্ষণের বিষয়ে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামিরা ধর্ষণের সত্যতা স্বীকার করেছেন এবং তাদের কোর্টে চালান দেয়া হয়েছে।"