• শুক্রবার, নভেম্বর ১৫, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৬ রাত

শিল্পখাতে জ্বালানিসংকট দূর করতে ৮ দফা সুপারিশ

  • প্রকাশিত ১০:০২ রাত নভেম্বর ৬, ২০১৯
গ্যাস
ছবি: সংগৃহীত

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘শিল্পপ্রতিষ্ঠানের সমস্যা সমাধানে বিদ্যুৎ জ্বালানির সমস্যা সমাধানে স্থায়ী কমিটি গঠন করা হবে’

শিল্পপ্রতিষ্ঠানে ২৪ ঘণ্টা গ্যাস সরবরাহ ও নির্দিষ্ট এলাকায় শিল্প প্রতিষ্ঠান স্থাপনসহ ৮ দফা সুপারিশ করেছে বিদ্যুৎ জ্বালানির সমস্যা সমাধানে গঠিত স্থায়ী কমিটি। সম্প্রতি কমিটির আহ্বায়ক বাংলাদেশ জ্বালানি ও বিদ্যুৎ গবেষণা কাউন্সিল (ইপিআরসি)-এর চেয়ারম্যান সুবীর কিশোর চৌধুরী বিদ্যুৎ বিভাগে এই প্রতিবেদন জমা দেন। এক প্রতিবেদনে এখবর জানায় বাংলা ট্রিবিউন।

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, কমিটি তাদের জমা দেওয়া প্রতিবেদনে নির্দিষ্ট শিল্প এলাকায় কারখানা স্থাপনের ওপর সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছে। ইতোমধ্যে রফতানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকায় সরকার বিদ্যুৎ জ্বালানি সরবরাহে অবকাঠামো নির্মাণ করেছে। চেষ্টা করা হচ্ছে, এসব এলাকার কারখানাকে নিরবচ্ছিন্ন সরবরাহ দিতে। কমিটি মনে করছে, শিল্প মালিকদের বিভিন্ন সংগঠন এই কাজে উদ্যোক্তাদের উৎসাহ দিতে পারে।

গত ১৪ অক্টোবর বিদ্যুৎ ভবনে শিল্প কারখানায় গ্যাস ও বিদ্যুতের সমস্যা সমাধানের বিষয়ে ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদের সঙ্গে সেমিনার করে ইপিআরসি। সেমিনারে বিটিএমএ, বিজিএমইএসহ বিভিন্ন ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। 

সেমিনারের পর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ সাংবাদিকদের বলেন, “শিল্প প্রতিষ্ঠানের সমস্যা সমাধানে বিদ্যুৎ জ্বালানির সমস্যা সমাধানে স্থায়ী কমিটি গঠন করা হবে। এরপর গত ২২ সেপ্টেম্বর ইপিআরসি চেয়ারম্যান সুবীর কিশোর চৌধুরীকে সভাপতি করে একটি ২০ সদস্যের এই বিশেষ কমিটি গঠন করা হয়।”

ইপিআরসি চেয়ারম্যান সুবীর কিশোর চৌধুরী বলেন, “শিল্পে বিদ্যুৎ ও গ্যাসের সমস্যা সমাধানে ২০ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি এরইমধ্যে তাদের সুপারিশ বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিভাগের কাছে জমা দিয়েছে।” 

তিনি বলেন, “গ্যাস ও বিদ্যুতের সমস্যা সমাধানে আমরা বেশ কিছু সুপারিশ করেছি। এসব সুপারিশ বাস্তবায়িত হলে আশা করি, শিল্পে আর সমস্যা থাকবে না। তবে কিছু সুপারিশ তাৎক্ষণিক আবার কিছু সুপারিশ দীর্ঘমেয়াদের জন্য করা হয়েছে।”