• রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:০১ দুপুর

ধলাই নদীতে পলো বাওয়া উৎসব

  • প্রকাশিত ০৩:৫৫ বিকেল নভেম্বর ৭, ২০১৯
মৌলভীবাজার পলো উৎসব
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে শুরু হয়েছে শতবর্ষ পুরনো পলো বাওয়া উৎসব ঢাকা ট্রিবিউন

এই উৎসব জানান দেয় জলাভূমির দেশ বাংলাদেশের মাছ এখনও বিলুপ্ত হয়নি, কমেনি বাঙালির মৎস্যপ্রীতি

বর্ষার জমাট পানি নামতে শুরু করেছে। গ্রামের ফসলি জমিগুলো এখনো আবাদ উপযোগী হয়ে ওঠেনি। তাই কৃষকদের এখন অবসর মৌসুম। এই অবসরে স্বল্প পানিতে মাছ ধরা হচ্ছে রীতিমতো উৎসব করে।

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের ধলাই নদীতেও এই সময়ে পানি কমতে থাকে। শত বছর ধরে এই মৌসুমে বিভিন্ন উপকরণ দিয়ে দল বেধে মাছ ধরে আসছেন। পলো, উড়াল জাল, প্লেন জাল দিয়ে রীতিমতো শুরু হয় মাছ শিকারের উৎসব। স্থানীয়রা যার নাম দিয়েছেন “পলো বাওয়া” উৎসব।

পলো শব্দটি এসেছে বাঁশ দিয়ে বিশেষ ভাবে তৈরি এক ধরনের ঝাঁপির নাম থেকে।

শত বছরের রীতি অনুযায়ী বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ধলাই নদীর বিখ্যাত “পলো বাওয়া” উৎসব শুরু হয়। এতে অংশ নেন ৩ শতাধিক স্থানীয় মানুষ। এছাড়া, জেলার ছোট-বড় ছড়া, বিলসহ বিভিন্ন জলাশয়েও “পলো বাওয়া” উৎসবে অংশ নিচ্ছেন শত শত মানুষ।

প্রতিবছর এই সময়ে  কমলগঞ্জের সৌখিন মাছ শিকারীরা দলবেধে উৎসবমুখর পরিবেশে “পলো বাওয়া” উৎসবে অংশ নেয়। 

মাথা ও কোমরে আঁটসাঁট করে গামছা বেঁধে আনন্দ নিয়েই মাছ ধরেন এই উৎসবে অংশগ্রহনকারীরা। নদীর অল্প পানিতে ৩০-৪০ জনের একটি দল একদিকে জাল নিয়ে সারিবদ্ধ হয়ে দাঁড়িয়ে থাকেন। আর অন্যপ্রান্ত থেকে ৪০-৫০ জনের সারিবদ্ধ দল পলো দিয়ে মাছ ধরতে ধরতে সামনের দিকে এগিয়ে আসেন। 

বছরের এই দিনটির জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করেন কমলগঞ্জের মৎস্যপ্রেমীরা। কারণ দলবেঁধে মাছ ধরার আনন্দ যে অনন্য।