• শনিবার, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫২ রাত

হাত-পা বেঁধে তরুণীকে ধর্ষণ

  • প্রকাশিত ০৯:৪৮ রাত নভেম্বর ৮, ২০১৯
গণধর্ষণ
প্রতীকী ছবি। বিগস্টক।

অভিযুক্ত নুর মোহাম্মদ ভুক্তভোগীর কলোনির কেয়ারটেকার হিসেবে কাজ করেন

ফেনীর দাগনভূঞায় এক তরুনীকে তুলে নিয়ে গিয়ে হাত-পা বেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে নুর মোহাম্মদ নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) সন্ধ্যায় রামনগর ইউনিয়নের আজিজ ফাজিলপুর গ্রামের নিজাম কলোনি এলাকায় এই ঘটনা ঘটে বলে নিশ্চিত করেছেন দাগনভূঞা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম উদ্দিন।

শুক্রবার সন্ধ্যায় এই ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত নুর মোহাম্মদ ভুক্তভোগীর পাশের বাড়িতে থাকেন। তিনি নিজাম কলোনির কেয়ারটেকার হিসেবে কাজ করেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওই তরুণীকে নিজের বাসার সামনে থেকে আরও ৩জনের সহযোগিতায় একটি সিএনজিতে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে যান নুর মোহাম্মদ। পরে ভুক্তভোগীকে একটি কলাবাগানে নিয়ে গিয়ে হাত-পা বেঁধে ধর্ষণ করেন তিনি। এসময় ওই তরুণী যাতে চিৎকার না করতে পারেন সেজন্য তার মুখেও কাপড় বেঁধে দেন কলোনির নিরাপত্তায় নিয়োজিত নুর মোহাম্মদ।

এদিকে, ওই তরুণীকে কোথাও না পেয়ে খুঁজতে শুরু করেন তার পরিবারের লোকজন। পরে বাড়ির অদূরে অবস্থিত কলাবাগান থেকে হাত-পা ও মুখ বাঁধা অবস্থায় তরুণীকে উদ্ধার করেন তারা। পরে খবর পেয়ে পুলিশ এসে তরুণীকে ফেনী সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

ওসি আসলাম উদ্দিন ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, "ভিকটিমকে উদ্ধার করে চিকিৎসা ও ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ফেনী সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। নুর মোহাম্মদ ও তার সহযোগীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।"