• শুক্রবার, ডিসেম্বর ০৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৭:৫৬ রাত

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে চার জেলায় নিহত ৫

ঘুর্ণিঝর বুলবুল
ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের আঘাত হানার পর বাগেরহাটের একটি রাস্তা। ছবি: সৈয়দ জাকির হোসাইন/ঢাকা ট্রিবিউন

 এছাড়া উপকূলবর্তী জেলাগুলোয় ঘরবাড়ি, ফসল ও গাছপালার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে 

ঘূর্ণিঝড় 'বুলবুল' শনিবার (৯ নভেম্বর) রাতে ক্রমশ দূর্বল হয়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ ও সুন্দরবনে আঘাত হানে। পরে রবিবার (১০ নভেম্বর) ভোরে অপেক্ষাকৃত আরও দুর্বল হয়ে বাংলাদেশের উপকূলবর্তী অঞ্চলে আঘাত করে। বুলবুলের প্রভাবে খুলনা, পটুয়াখালী ও বাগেরহাটসহ চার জেলায় অন্তত পাঁচজন নিহত হয়েছেন বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে। পাশাপাশি উপকূলবর্তী জেলাগুলোতে ঘরবাড়ি, ফসল ও গাছপালার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

এদিকে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল অগ্রসর হয়ে ও বৃষ্টি ঝরিয়ে ক্রমশ দুর্বল হয়ে গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর। এতে করে মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরে জারি করা ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত নামিয়ে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরকে ৯ নম্বর মহাবিপদ সংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।  পাশাপাশি, কক্সবাজার সমুদ্র বন্দরকে ৪ নম্বর সংকেত নামিয়ে তার পরিবর্তে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। 

খুলনা

খুলনার দাকোপ উপজেলায় প্রমিলা মণ্ডল (৫২) ও দিঘলিয়া উপজেলায় আলমগীর হোসেন (৩০) নামের দুই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। নিহত দুইজনই নিজ বাড়িতে গাছের নিচে চাপা পড়েন বলে জানা গেছে। 

দাকোপ উপজেলা পরিষদের বুলবুল কন্ট্রোল রুমের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শেখ আব্দুল কাদের বলেন, “শনিবার বিকালে প্রমিলা মণ্ডল দক্ষিণ দাকোপ সরকারি সাইক্লোন সেন্টারে অবস্থান নিয়েছিলেন। কিন্তু রবিবার সকালে তিনি সেখান থেকে বের হয়ে পাশেই নিজ বাড়ি-ঘর দেখতে যান। সেখানে গিয়ে গাছ চাপা পড়ে নিহত হন।”

অপর ব্যক্তি আলমগীর হোসেনের মৃত্যু প্রসঙ্গে দিঘলিয়া উপজেলার সেনহাটি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সচিব প্রদীপ কুমার বিশ্বাস বলেন,  “রবিবার সকালে দিঘলিয়া উপজেলার সেনহাটি এলাকায় নিজ বাড়িতে ঝড়ের আঘাতে ভেঙে পড়া ডালপালা সরাতে গিয়ে তিনি নিজেই গাছ চাপা পড়ে মারা যান। তিনি স্থানীয় কাটানী পাড়া ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা শফি মিস্ত্রীর ছেলে।”

 পটুয়াখালী

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলায় বসতঘর চাপা পড়ে হামেদ ফকির (৬৫) নামের এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার (৯ নভেম্বর) রাত তিনটার দিকে উপজেলার মাধবখালী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. সরোয়ার হোসেন জানান, “শনিবার রাত ৩টার দিকে ওই এলাকায় হঠাৎ ঝড়ো হাওয়ায় বসতঘরে ওপর গাছ পড়লে হামেদ ফকির ওই স্থানেই মারা যান।”

বাগেরহাট

বাগেরহাটের রামপাল উপজেলার ভরসাপুর গ্রামে গাছ পড়ে সামিয়া খাতুন (১৫) নামের এক কিশোরী নিহত হয়েছেন। 

রবিবার (১০ নভেম্বর) সকালে ঘরের ওপর গাছ ভেঙে পড়ায় এ মৃত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন জেলা প্রশাসক মামুনুর রশীদ।

প্রবল বর্ষণে জেলাটির নিমাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। ফলে অনেক পুকুর ও মাছের ঘের ভেসে গেছে। এছাড়া ৫ হাজার হেক্টর জমির আমন ধান ও শীতকালীন সব্জির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছে জেলাকৃষি বিভাগ জানায়।

মাদারীপুর

মাদারীপুর সদর উপজেলার ঘটমাঝিতে রবিবার (১০ নভেম্বর) বেলা তিনটার দিকে বসত ঘরের ওপর গাছ পড়ায় সালেহা বেগম (৪০) নামে এক মহিলার মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া রাজৈর উপজেলায় গাছে নিচে পড়ে ৬ জন আহত হয়েছে।