• রবিবার, ডিসেম্বর ১৫, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫৭ রাত

মানিকগঞ্জে পাসপোর্ট করাতে গিয়ে রোহিঙ্গা নারী আটক

  • প্রকাশিত ০৫:৪০ সন্ধ্যা নভেম্বর ১৩, ২০১৯
রোহিঙ্গা/মানিকগঞ্জ
বাঁ থেকে রেজাউল করিম, রোহিঙ্গা নারী আসমা ও তার কোলো একটি কন্যা সন্তান। ঢাকা ট্রিবিউন

নিজেকে মানিকগঞ্জের রেজাউল করিমের স্ত্রী পরিচয় দিয়ে একটি কন্যা সন্তানসহ পাসপোর্ট করাতে যান ওই রোহিঙ্গা নারী

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ায় পাসপোর্ট করাতে গিয়ে আটক হয়েছেন এক রোহিঙ্গা নারী। 

বুধবার (১৩ নভেম্বর) বেলা ১২টার দিকে মানিকগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস থেকে আটক হন তিনি। 

মানিকগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক মাকসুদুর রহমান জানান, বেলা বারোটার দিকে সাটুরিয়ার জনৈক রেজাউল করিম নামের এক ব্যক্তির স্ত্রী পরিচয় দিয়ে পাসপোর্ট করাতে আসেন ওই নারী। 

তিনি জানান, আটক নারী নিজেকে মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলার ২নং দিঘলীয়া ইউনিয়নের বেংরোয়া গ্রামের আব্দুল হাইয়ের মেয়ে জান্নাত আক্তার হিসেবে পরিচয় দেন। ১০ জুন ২০০০ সালে জন্ম দেখিয়ে একটি জন্মসনদও দাখিল করেন তিনি। কিন্তু কথাবার্তায় সন্দেহ হলে তাৎক্ষণিকভাবে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নিবন্ধিত সার্ভার ঘেঁটে তার আসল পরিচয় পাওয়া যায়। 

মাকসুদুর রহমান বলেন, “তিনি প্রকৃতপক্ষে রোহিঙ্গা। তার নাম আসমা। বাবা সিরাজুল হক। রোহিঙ্গা নিবন্ধিত নম্বর ১৪৩২০১৭১২১৩১৫৪৪১৫। তার জন্ম তারিখ ৫ জানুয়ারি, ২০০১। আসমা ২০১৭ সালের ১০ অক্টোবর চট্রগ্রামের টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নিবন্ধিত হন। তাকে সদর থানায় সোর্পদ করা হয়েছে।” 

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রকিবুজ্জামান বলেন, ওই রোহিঙ্গা নারী দুই সপ্তাহ আগে চট্টগ্রাম থেকে রেজাউল করিমের সাভারের বাসায় আসেন। তিনি রেজাউল করিমের স্ত্রী পরিচয় দিয়ে একটি কন্যা সন্তানসহ পাসপোর্ট করাতে আসেন। তাদের দু’জনকেই আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনী পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। 

এদিকে ওসি আরও বলেন, “ওই নারীর সনাক্তকারী ও পাসপোর্ট ফরমে সত্যায়নকারী মানিকগঞ্জের আইনজীবী মো.মনোয়ার হোসেনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।”