• শুক্রবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:৪১ দুপুর

দুই শিক্ষার্থীকে নকলে সহায়তা, সাত শিক্ষককে বহিষ্কার

  • প্রকাশিত ০৪:৪৩ বিকেল নভেম্বর ১৬, ২০১৯
নেছারিয়া কামিল মাদ্রাসা
লালমনিরহাটের নেছারিয়া কামিল মাদ্রাসা। ঢাকা ট্রিবিউন

শনিবার লালমনিরহাট শহরের নেছারিয়া কামিল মাদ্রাসা পরীক্ষা কেন্দ্রে জেডিসি পরীক্ষা চলাকালে এই ঘটনা ঘটে

লালমনিরহাটে জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষায় ২ শিক্ষার্থীকে নকলে সহায়তা করার অভিযোগে ৭ শিক্ষককে বহিষ্কার করা হয়েছে। 

শনিবার (১৬ নভেম্বর) লালমনিরহাট শহরের নেছারিয়া কামিল মাদ্রাসা পরীক্ষাকেন্দ্রে ইংরেজি পরীক্ষা চলাকালে এই ঘটনা ঘটে। ৭ শিক্ষকের পাশাপাশি ওই ২ শিক্ষার্থীকেও বহিষ্কার করা হয়েছে।

বহিষ্কৃত ৭ শিক্ষক হলেন- নেছারিয়া কামিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম, মোগলহাট ইটাপোতা দাখিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক ভব রঞ্জন বর্মণ, চরকুলাঘাট দাখিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক মরিয়ম বেগম, হারাটি দাখিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক রহমত আলী, বলিরাম দাখিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক সাজেদা বেগম, বেরপাঙ্গা দাখিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক নাছির উদ্দিন ও একই মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক আবু হানিফ।

জানা যায়, শনিবার ওই পরীক্ষাকেন্দ্রে ইংরেজি পরীক্ষা চলাকালে মোগলহাট ইটাপোতা দাখিল মাদ্রাসা ও কাশিপুর ছিলাখানা দাখিল মাদ্রাসার দুই পরীক্ষার্থীকে প্রশ্নের উত্তর বলে দেন পরীক্ষাকেন্দ্রের ১১ ও ১২ নম্বর কক্ষের কয়েক শিক্ষক। এই ঘটনায় কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশে নেছারিয়া কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মো. মোসলেম উদ্দিন ওই দুই কক্ষের দায়িত্বে থাকা ৭ শিক্ষক ও ওই ২ শিক্ষার্থীকে পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বন ও এই কাজে সহায়তার অভিযোগে বহিষ্কার করেন।    

জানতে চাইলে বহিষ্কৃত সহকারী শিক্ষক সাজেদা বেগম বলেন, "দুই পরীক্ষার্থী আমার কাছে একটা বিষয় বুঝে চেয়েছিল। আমিও সরলভাবে বলে দিয়েছিলাম। এটা আমার ভুল হয়েছে। এই দুই কক্ষে নিয়োজিত শিক্ষকদের সাথে নিয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট স্যারের নিকট ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চেয়েছি কিন্তু সাজা থেকে মাফ পাইনি। বিষয়টি সারাজীবনের জন্য দুঃখজনক একটি ঘটনা হয়ে থাকবে।"

লালমনিরহাট নেছারিয়া কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মো. মোসলেম উদ্দিন বলেন, "পরীক্ষার হলের দায়িত্বে থাকা সাজেদা বেগম নামের একজন সহকারী শিক্ষিকা ১১ ও ১২ নম্বর কক্ষে দায়িত্বরত শিক্ষকদের সহযোগিতায় দুই শিক্ষার্থীকে উত্তর বলে দেন। এটা দেখতে পান নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট। পরবর্তীতে নকলে সহায়তা করায় ওই দুই কক্ষের দায়িত্বে নিয়োজিত ৭ শিক্ষককে ও নকল করার অপরাধে ২ শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়।"