• রবিবার, ডিসেম্বর ১৫, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫৭ রাত

নকল সরবরাহের অভিযোগে ৩ মাদ্রাসা শিক্ষকের কারাদণ্ড

  • প্রকাশিত ০১:১৯ দুপুর নভেম্বর ১৭, ২০১৯
ঠাকুরগাঁও
শনিবার (১৬ নভেম্বর) সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আব্দুল্লাহ আল মামুন পরীক্ষার্থীদের নকল সরবরাহের সময় তাদের হাতে-নাতে আটক করেন। ছবি: ইউএনবি

ঠাকুরগাঁওয়ে জেডিসি পরীক্ষা চলাকালে নকল সরবরাহের সময় হাতে-নাতে আটক করা হয় তাদের

ঠাকুরগাঁওয়ে জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষা চলাকালে নকল সরবরাহের অভিযোগে তিন পরীক্ষা পরিদর্শককে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

শনিবার (১৬ নভেম্বর) সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আব্দুল্লাহ আল মামুন পরীক্ষার্থীদের নকল সরবরাহের সময় তাদের হাতে-নাতে আটক করেন। এসময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল কাইয়ুম খান, কেন্দ্র সচিব ও ট্যাগ অফিসার উপস্থিত ছিলেন।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার সালন্দর কামিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে পরীক্ষার্থীদের নকল সরবরাহের অভিযোগে দুই পরিদর্শক ও বালিয়াডাঙ্গী উপজেলায় একই অভিযোগে এক মাদ্রাসা শিক্ষককে এক মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

কারাদণ্ডপ্রাপ্ত পরিদর্শকেরা হলেন- উত্তর হরিহরপুর আলিম মাদ্রাসার এবতেদায়ি প্রধান মনসুর আলী, ভেলাজান আনসারিয়া ফাজিল মাদ্রাসার শিক্ষক আয়েশা সিদ্দিকা ও বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ধনতলা ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক আব্দুল কাদের।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, “সদর উপজেলায় পরিদর্শক দু’জন নিজেরাই পরীক্ষার্থীদের নকল সরবরাহ করছিলেন এবং তারা তাদের দোষ স্বীকার করেছেন। এছাড়া কেন্দ্রে নিয়ম বহির্ভূতভাবে মোবাইল রাখার অভিযোগে আরও দু’জন পরীক্ষা পরিদর্শককে আর্থিক জরিমানা করা হয়েছে।”

অন্যদিকে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ধনতলা ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক আব্দুল কাদেরকে জেডিসি পরীক্ষায় নকল সরবরাহ করার দায়ে এক মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। বালিয়াডাঙ্গী সমিরউদ্দীন স্মৃতি কলেজ কেন্দ্র্রে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. খায়রুল আলম সুমন এই রায় দেন।