• শনিবার, জানুয়ারী ১৮, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:২১ দুপুর

সীমান্তে বাংলাদেশি গরু ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

  • প্রকাশিত ০৫:৫৮ সন্ধ্যা নভেম্বর ২৬, ২০১৯
চুয়াডাঙ্গা

বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে ভারতীয় নাগরিক জাকির হোসেন ও তার সহোদর ভজা এবং বশির আলী ক্ষিপ্ত হয়ে গনি মিয়াকে বেধড়ক পিটিয়ে গুরুতর আহত অবস্থায় সীমান্তের ৮৭ নম্বর মেইন পিলারের নিকট ফেলে রেখে যায়

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় গনি মিয়া (৩০) নামে এক গরু ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যা করেছে জাকির হোসেন, ভজা ও বশির নামে তিন ভারতীয় নাগরিক। 

মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর) ভোররাতে দামুড়হুদার চাকুলিয়া সীমান্তে এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত গনি মিয়া দামুড়হুদা উপজেলার কুড়লগাছি চাকুলিয়া গ্রামের তাহের আলির ছেলে। অপরদিকে হত্যায় অভিযুক্ত ভারতীয় নাগরিক জাকির হোসেন ও তার সহোদর ভজা এবং বশিরের বাড়ি নদীয়া জেলার বেনীপুর থানার শিমুলিয়া গ্রাম।               

বিজিবি ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার ভোর রাতে গনি মিয়া গরু আনার উদ্দেশে সীমান্তের কাঁটাতার পার হয়ে ভারতে যায়। এ সময় গরু ব্যবসার অভ্যন্তরীণ লেনদেন নিয়ে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে ভারতীয় নাগরিক জাকির হোসেন ও তার সহোদর ভজা এবং বশির আলী ক্ষিপ্ত হয়ে গনি মিয়াকে বেধড়ক পিটিয়ে গুরুতর আহত অবস্থায় সীমান্তের ৮৭ নম্বর মেইন পিলারের নিকট ফেলে রেখে যায়।

সকালে এলাকাবাসী গনি মিয়াকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করলে সকাল ৯টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

চুয়াডাঙ্গা-৬ বিজিবি পরিচালক মো. খালেকুজ্জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, “প্রাথমিক তথ্যে আমরা জানতে পেরেছি গরু ব্যবসাকে কেন্দ্র করে অভ্যন্তরীণ অর্ন্তদ্বন্দের কারণে ভারতীয় নাগরিক জাকির হোসেন, ভজা  ও বশির আলী বাংলাদেশি গরু ব্যবসায়ী গনি মিয়াকে পিটিয়ে আহত করে ফেলে রেখে যায়। তদন্ত চলছে পরবর্তীতে আরো তথ্য পাওয়া যাবে।”