• শুক্রবার, এপ্রিল ১০, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৩২ রাত

নাটোরে শাসনের নামে শিশুকে নির্যাতনের ভিডিও নিয়ে তোলপাড়

  • প্রকাশিত ১০:১৪ সকাল নভেম্বর ২৮, ২০১৯
নারী নির্যাতন
প্রতীকী ছবি

অভিযুক্তের যুবক চৌগ্রাম ইউনিয়ন ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক

নাটোরের সিংড়া উপজেলার ছোট চৌগ্রাম এলাকায় শাসনের নামে একটি শিশুকে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। মাস ছয়েক আগের নির্যাতনের ঘটনার ভিডিওটি সম্প্রতি ছড়িয়ে পড়ার পর শুরু হয়েছে সমালোচনা ও প্রতিবাদ। নড়েচড়ে বসেছে স্থানীয় প্রশাসন। নির্যাতনকারীকে আইনের আওতায় আনতে মাঠে নেমেছে পুলিশ।

অভিযুক্তের নাম আরাফাত হোসেন রনি। তিনি চৌগ্রাম ইউনিয়ন ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক। ভুক্তভোগী শিশুটির বাড়িও একই এলাকায়। তার বাবা একজন দিনমজুর।

সিংড়া থানার ওসি নূর-ই-আলম সিদ্দিকী বুধবার রাত সাড়ে এগারোটার দিকে ঢাকা ট্রিবিউনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ওই নির্যাতনের ঘটনার ভিডিও ধারণকারী যুবক নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, মাস ছয়েক আগে বাড়ি থেকে মোটর সাইকেলযোগে চৌগ্রাম বাজারে যাওয়ার পথে তিনি দেখতে পান, ওই শিশুটিকে ক্রমাগত আঘাত করেই যাচ্ছেন রনি। একপর্যায়ে তাকে কান ধরে ওঠবস করানো হয়।

তিনি ঘটনাটির ভিডিও ধারণ করেন। 

মারধরের কারণ জানতে চাইলে ভিডিওধারণকারী যুবককে রনি জানান, সামান্য কারণে সে (শিশু) তাকে অকথ্য গালিগালাজ করেছে। তাই তিনি তাকে শাসন করেছেন। আর যাতে ভবিষ্যতে কখনো বড়দের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ না করে সেজন্য তাকে কান ধরে উঠবস করানো হয়েছে।

এদিকে, বুধবার সকাল থেকে ভিডিওটি সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করলে তোলপাড় শুরু হয়। ভিডিওটি দেখার পর অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা রনিকে গ্রেফতারের জোর দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

এবিষয়ে সিংড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূর ই আলম সিদ্দিকী জানান, ইতোমধ্যে রনির বাড়ি ও আশেপাশের কয়েকটি জায়গায় একাধিকবার অভিযান চালানো হয়েছে। এই ঘটনায় আইনি পদক্ষেপ প্রক্রিয়াধীন।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা যায়নি। এদিকে, বিষয়টি স্থানীয়ভাবে সমাধানের চেষ্টা করছেন রনির বাবা জালাল উদ্দিন। ছেলের অপরাধের জন্য ওই শিশুর পরিবারের কাছে ক্ষমাও চেয়েছেন তিনি।