• সোমবার, জানুয়ারী ২০, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৪৫ রাত

বাড়ির ভেতর দিয়ে হাইভোল্টেজের বিদ্যুতের তার!

  • প্রকাশিত ০৮:৪৪ রাত নভেম্বর ২৮, ২০১৯
ঝুকিপূর্ণ বৈদ্যুতিক তার
বাসভবনের মধ্যে ৪০০ ভোল্টেজের বৈদ্যুতিক তার। ইউএনবি

পৌরসভার নির্ধারিত ভবন তৈরির নকশা অমান্য করে শক্তিশালী বৈদ্যুতিক তার ভেতরে রেখে ভবন নির্মাণ করার জন্য ঠিকাদারকে দায়ী করেছেন বাড়ির মালিক

চাঁদপুর পৌর এলাকার চেয়ারম্যানঘাট জিটি রোড (উত্তর) এলাকায় তিনতলা ভবন তৈরি করেন সৌদি প্রবাসী আলাউদ্দিনের স্ত্রী মাসুদা বেগম। ওই বাড়ির একটি কক্ষের ভেতর দিয়ে ঝুঁকিপূর্ণভাবে নেওয়া হয়েছে ৪০০ ভোল্টেজের বিদ্যুতের তার।

সরেজমিন গেয়ে দেখা যায়, পৌরসভার অনুমোদনকৃত ভবন তৈরির নকশা অমান্য করে আড়াই শতক জমির ওপর তিনতলা ভবনটি নির্মাণ করা হয়েছে। কয়েক দিন আগে সম্পন্ন করা ঝুঁকিপূর্ণ ভবনটির দ্বিতীয় তলার মাঝখান দিয়ে দুই পাশের দেয়ালের কিছু ইট সরিয়ে বিদ্যুতের হাইভোল্টেজের তার বিপজ্জনকভাবে একটি কক্ষের ভেতর দিয়ে নেয়া হয়েছে।

তবে ঝুঁকি নিয়ে ভবন তৈরি ঠিক হয়নি বলে স্বীকার করে ভবন মালিক মাসুদা বেগম জানান, "আমার স্বামী দেশের বাইরে থাকে। আমি এ ভবনটি এক ঠিকাদারকে দিয়ে করিয়েছি। তাকে বলেছিলাম, বিদ্যুৎ বিভাগের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে বিদ্যুতের তার সরিয়ে ভবনটি নির্মাণ করতে। কিন্তু ওই ঠিকাদার আমার কথা শোনেননি। আর আমিও ঠিকভাবে তদারকি করতে না পারায় এমন পরিস্থিতি ঘটেছে।"

এ বিষয়ে চাঁদপুর পৌরসভার নকশাকার জাহিদুল ইসলাম বলেন, "পৌরসভার নির্ধারিত ভবন তৈরির নকশা অমান্য করে শক্তিশালী বৈদ্যুতিক তার ভেতরে রেখে এ ধরনের ভবন নির্মাণ ঠিক হয়নি। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। ভবনের অবৈধ অংশ ভেঙে ফেলার নির্দেশ দেয়া হচ্ছে।"

এদিকে চাঁদপুরের পিডিবি বিদ্যুৎ বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী এস এম ইকবাল বলেন, "বাসভবনের ভেতর দিয়ে বিদ্যুতের হাইভোল্টেজের যে তার প্রবাহিত হয়েছে, তা ৪০০ ভোল্টেজের। এটি অত্যন্ত বিপদজনক। বিষয়টি জানতে পেরে আমরা ইতিমধ্যেই ওই ভবনের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেই।"

এ ঘটনায় দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলেও জানান তিনি।