• শনিবার, জানুয়ারী ১৮, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:৪০ সকাল

চলন্ত বাসে চবি শিক্ষার্থীর শ্লীলতাহানির চেষ্টা

  • প্রকাশিত ১০:১২ রাত নভেম্বর ২৮, ২০১৯
ধর্ষণ
প্রতীকী ছবি।

একা পেয়ে চলন্ত বাসে ওই শিক্ষার্থীর উপর চড়াও হন দুই হেলপার

চলন্ত বাসে একা পেয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) এক ছাত্রীর যৌন হয়রানি করার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে সোহাগ পরিবহনের একটি কোচের দুই হেলপারের বিরুদ্ধে।

বুধবার (২৭ নভেম্বর) সন্ধ্যায় এই ঘটনা ঘটে বলে নিশ্চিত করেছেন চাঁদগাও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ। ভুক্তভোগী ছাত্রী এই ঘটনা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্ট দেওয়ার পর তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর ওই ফেসবুক পোস্ট থেকে জানা যায়, পটিয়ায় বোনের বাড়ি থেকে বাড়ি ফেরার উদ্দেশে সোহাগ পরিবহনের একটি বাসে ওঠেন ওই ছাত্রী। কিন্তু তার গন্তব্যস্থল বন্দরনগরীর ২ নম্বর গেট এলাকায় পৌঁছানোর আগেই বদ্দারহাট এলাকায় বাসের অন্য সব যাত্রী নেমে যান। পুরো বাসে একা থাকায় এ সময় ওই ছাত্রীও নেমে যেতে চাইলে বাসের হেলপাররা তাকে ২ নম্বর গেটে নামিয়ে দেবেন বলে আশ্বস্ত করেন।

কিন্তু বাস চলা শুরু হলে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর উপর চড়াও হন বাসের দুই হেলপার। এ সময় ওই দুই ব্যক্তি ভুক্তভোগীর হিজাব টেনে খোলার চেষ্টা করেন এবং তার মোবাইল ছিনিয়ে নেন।

ঢাকা ট্রিবিউনকে ওই শিক্ষার্থী বলেন, "ওদের হাত থেকে বাঁচার জন্য চিৎকার শুরু করি। চিৎকার শুনতে পেয়ে বাসের চালক আমাকে ছেড়ে দিতে বললে ওই দুই লম্পট আমাকে বাস থেকে নামতে দেয়।"

"মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এসেছি। আমি এই ঘটনার বিচার চাই", যোগ করেন ওই বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী।      

এ বিষয়ে চবি'র প্রক্টর মনিরুল ইসলাম বলেন, "কর্মকর্তাদের সাথে বিষয়টি নিয়ে কথা হয়েছে। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর সাথে কথা বলে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।"

চাঁদগাও থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, "চলন্ত বাসে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীকে যৌন হয়রানি করার চেষ্টার ঘটনাটি আমরা শুনেছি। এই ব্যাপারে ওই শিক্ষার্থীর লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।"