• সোমবার, জানুয়ারী ২০, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৪৫ রাত

চট্টগ্রামে গ্যাসলাইন বিস্ফোরণে আহত শিক্ষিকার মৃত্যু

  • প্রকাশিত ০৯:৩০ রাত নভেম্বর ২৯, ২০১৯
ডরিন তিশা গোমেজ
নিহত শিক্ষিকা ডরিন তিশা গোমেজ। ইউএনবি

বিস্ফোরণের সময় স্কুলে যাওয়ার পথে দেয়াল চাপা পড়ে গুরুতর আহত হয়েছিলেন তিনি

চট্টগ্রাম মহানগরীর পাথরঘাটার বড়ুয়া ভবনে ভয়াবহ গ্যাসলাইন বিস্ফোরণে আহত আরও এক নারী ১৩ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর মারা গেছেন। শুক্রবার (২৯  নভেম্বর) চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

মৃত ডরিন তিশা গোমেজ (২৪) নগরীর পাথরঘাটা ব্রিকফিল্ড রোডের বাসিন্দা অনল গোমজের কন্যা। তিনি ইসলামিয়া কলেজে বি.কম সমাপনী পরীক্ষার্থী ছিলেন এবং পাথরঘাটা সেন্ট জনস গ্রামার স্কুলে শিক্ষকতা করতেন। বিস্ফোরণের সময় স্কুলে যাওয়ার পথে দেয়াল চাপায় গুরুতর আহত হন তিনি।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আলাউদ্দিন বলেন, "বিস্ফোরণে আহত হয়ে ১৩ দিন চমেক হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন থাকার পর শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টায় ডরিন তিশা গোমেজ মৃত্যুবরণ করেন। তার লাশ স্বজনরা নিয়ে গেছেন।"

এ নিয়ে পাথরঘাটার বিস্ফোরণে আটজনের মৃত্যু হলো। কোতোয়ালী থানার ওসি (তদন্ত) কামরুজ্জামান বলেন, "বিস্ফোরণে আহত কেউ মারা গেছে কিনা আমরা এখনো জানি না।"

উল্লেখ্য, গত ১৭ নভেম্বর নগরীর পাথরঘাটায় গ্যাসলাইন বিস্ফোরণের ঘটনায় ঘটনাস্থলে সাতজন নিহত ও ১৫ জন আহত হন।