• বুধবার, এপ্রিল ০৮, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:২৭ রাত

সাতক্ষীরা ছাত্রলীগের সা.সম্পাদকের দুই দেহরক্ষী ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

  • প্রকাশিত ০৩:৩০ বিকেল নভেম্বর ৩০, ২০১৯
বন্দুকযুদ্ধ
ছবিতে সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাদিকুর রহমান সাদিকের সঙ্গে পুলিশের সঙ্গে “বন্দুকযুদ্ধে” নিহত দ্বীপ আজাদ ও সাইফুল সংগৃহীত

দুই দেহরক্ষীর মৃত্যুতে এক আবেগঘন স্ট্যাটাসে ছাত্রলীগ নেতা সাদিক বলেন, ‘ভাই তোদেরকে এভাবে হারায়ে ফেলব তা কখনো বুঝতে পারিনি। পারলে মাফ করে দিস। দোয়া করি আল্লাহ তোদের বেহেস্তবাসী করুন’

সাতক্ষীরা শহরের বাইপাস সড়কের বকচরা মোড়ে পুলিশের সঙ্গে “বন্দুকযুদ্ধে” দ্বীপ আজাদ ও সাইফুল ইসলাম নামের দুই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন।  

শুক্রবার (২৯ নভেম্বর) মধ্যরাতে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত দুইজনই সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাদিকুর রহমান সাদিকের দেহরক্ষী বলে জানা গেছে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে ২টি বিদেশি পিস্তল ও ১ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

নিহত দ্বীপ আজাদ শহরের মুন্সিপাড়া এলাকা ও সাইফুল ইসলাম কালিগঞ্জের সাইহাটি গ্রামের বাসিন্দা।

সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, “দ্বীপ আজাদ ও সাইফুল ইসলাম চিহিৃত অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী। কালিগঞ্জের এক ব্যক্তির ২৬ লাখ টাকা ছিনইতাইসহ বিভিন্ন খুন-খারাপির সঙ্গে জড়িত তারা। তাদের বিরুদ্ধে  নিজ থানায় হত্যাসহ একাধিক মামলা রয়েছে।”

তিনি আরও বলেন, “শুক্রবার মধ্যরাতে দ্বীপ ও সাইফুলকে গ্রেপ্তার করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ ও কালিগঞ্জ থানা পুলিশ । পরে তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী অস্ত্র উদ্ধারে বকচরা মোড় এলাকায় যায়। এসময় তাদের সহযোগীরা তাদেরকে ছিনিয়ে নিতে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছুঁড়লে গুলিবিদ্ধ হন দ্বীপ ও সাইফুল। পরে হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যান তারা।”

এদিকে একাধিক সূত্রে জানা গেছে নিহত দুই ব্যক্তিই সাতক্ষীরা সদর এমপি মীর মোস্তাক আহমেদ রবির আস্থাভাজন। দুই দেহরক্ষীর মৃত্যুতে ফেসবুকে এক আবেগঘন স্ট্যাটাস দেন ছাত্রলীগ নেতা সাদেক রহমান।

 “ভাই তোদেরকে এভাবে হারায়ে ফেলব তা কখনো বুঝতে পারিনি। পারলে মাফ করে দিস। দোয়া করি আল্লাহ তোদের বেহেস্তবাসী করুন।”এসময় নিহত দুই দেহরক্ষীর সঙ্গে থাকা ছবিও পোস্ট করেন তিনি।