• বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:১৮ রাত

অনুপ্রবেশ করে বাংলাদেশিকে মারধর, আটকের পর বিএসএফ সদস্যকে হস্তান্তর

  • প্রকাশিত ০৮:২২ রাত ডিসেম্বর ২, ২০১৯
বিএসএফ
ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী- বিএসএফ। ফাইল ছবি/রয়টার্স

বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে তিন বিএসএফ সদস্য ও চোরাচালানকারী আলী হোসেন পালিয়ে গেলেও বিজিবির হাতে আটক হন হেড কনস্টেবল শ্রী চৈতন্য

যশোরের বেনাপোলে সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেছিল ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) চার সদস্য। তাদের মধ্যে তিনজন পালাতে সক্ষম হলেও একজনকে আটক করে বর্ডার গার্ডস বাংলাদেশ (বিজিবি)। 

সোমবার (২ ডিসেম্বর) বিকেলে বেনাপোল সীমান্তের প্রধান সড়ক দিয়ে অনুপ্রবেশ করেছিল ওই বিএসএফ সদস্যরা। আটক বিএসএফ সদস্যের নাম শ্রী চৈতন্য। আটকের পর তাৎক্ষণিকভাবে দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সমঝোতায় পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে তাকে বিএসএফ-এর কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এক বাংলাদেশি চোরাচালানকারীকে ধরতে গিয়ে সোমবার (২ ডিসেম্বর) বিকেলে বাংলাদেশে ঢুকে পড়েছিলেন ওই বিএসএফ সদস্যরা।

ঢাকা ট্রিবিউন’কে বিষয়টি নিশ্চিত করে যশোর-৪৯ বিজিবি ব্যাটেলিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. সেলিম রেজা বলেন, একজন বিএসএফ সদস্যকে আটকের পর পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

বিজিবি সূত্র জানিয়েছে, সীমান্তবর্তী বড় আঁচড়া গ্রামের আলী হোসেন অবৈধভাবে ভারতে গেলে তাকে আটক করে বিএসএফ। সে পালিয়ে বাংলাদেশ অভিমুখে দৌড় দিলে পিছু নেয় ওই চার বিএসএফ সদস্য। একপর্যায়ে তারা নো-ম্যান্‌সল্যান্ড পেরিয়ে বাংলাদেশের ২০০ গজ ভেতরে বেনাপোল চেকপোস্টের পুরাতন ইমিগ্রেশন এলাকায় ঢুকে আলী হোসেনকে আটক করে বেদম মারধর করে।

খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে যান বিজিবি সদস্যরা। বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে বিএসএফ সদস্যদের তিনজন ও চোরাচালানকারী আলী হোসেন পালিয়ে গেলেও বিজিবির হাতে আটক হন হেড কনস্টেবল শ্রী চৈতন্য। পরে তাকে বিজিবি ক্যাম্পে নেওয়া হয়।

দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর কর্মকর্তাদের তাৎক্ষণিক পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে আটক বিএসএফ সদস্যকে ভারতের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।