• শনিবার, জানুয়ারী ১৮, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৩৬ সকাল

প্রশিক্ষণের সময় পুলিশের লক্ষ্যভ্রষ্ট গুলিতে বৃদ্ধ আহত

  • প্রকাশিত ০৯:৫০ রাত ডিসেম্বর ৫, ২০১৯
চিকিৎসা-পুলিশ-গুলি
জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন পুলিশের লক্ষ্যভ্রষ্ট গুলিতে আহত আব্দুর রহিম। ঢাকা ট্রিবিউন

ঘটনার সময় বৃদ্ধ আব্দুর রহিম ফায়ারিং রেঞ্জ থেকে প্রায় ১ কিলোমিটার দূরে নিজের বাড়িতে বিশ্রাম নিচ্ছিলেন

জামালপুরে প্রশিক্ষণের সময় পুলিশের লক্ষ্যভ্রষ্ট গুলিতে এক বৃদ্ধ আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুর ৩টার দিকে বিজিবি'র প্রশিক্ষণ রেঞ্জে পুলিশের প্রশিক্ষণ চলাকালীন এই ঘটনা ঘটে বলে নিশ্চিত করেছেন জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) বাছির উদ্দিন।

আহত আব্দুর রহিম (৬০) গুয়াবাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা। ঘটনার সময় তিনি নিজের ঘরে বিশ্রাম নিচ্ছিলেন। 

পুলিশ ও আহতদের পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলা জানা যায়, বিজিবির প্রশিক্ষণ রেঞ্জে পুলিশের ফায়ারিং প্রশিক্ষণ চলছিল। এ সময় একটি গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে প্রশিক্ষণ রেঞ্জ থেকে প্রায় ১ কিলোমিটার দূরে  নিজের বাড়িতে বিশ্রামরত আব্দুর রহিমের বাম পা ভেদ করে বেরিয়ে যায়।

আহতের মেয়ে কোহিনুর বেগম বলে, ঘরের টিনের দেয়াল ভেদ করে গুলিটি প্রবেশ করায় বিকট শব্দ হয়। আমরা ছুটে গিয়ে দেখি বাবার বাম পায়ে গুলি লেগেছে।"

পরে তাকে পরিবারের সদস্যরা জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। তবে, আব্দুর রহিমের অবস্থা বর্তমানে আশঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছেন জামালপুর জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মো. শফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, "গুলিটি ফুঁড়ে বেরিয়ে যায়। এ কারণে তার শরীরে কোনো ধরনের সংক্রমণ ঘটেনি। বর্তমানে তিনি আশঙ্কামুক্ত।"

এ প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে এএসপি বাছির উদ্দিন ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, "বিজিবি ক্যাম্পে পুলিশের ৫ দিনব্যাপী শীতকালীন মহড়া চলছিল। বৃহস্পতিবার দুপুরে ফায়ারিংয়ের প্রশিক্ষণ চলছিল। সে সময় এই ঘটনা ঘটে। এই ঘটনা কিভাবে ঘটলো তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। পুলিশ গুলিবিদ্ধ আব্দুর রহিমের সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করবে।"

এ বিষয়ে বিজিবি জামালপুর ৩৫ ব্যাটালিয়ানের অধিনায়ক কর্ণেল এসএম আজাদ বলেন, "এটা পুলিশের ব্যাপার। তাদেরই প্রশিক্ষণ চলছিল। বিষয়টি তারাই দেখভাল করবে।"

উল্লেখ্য, এর আগে গত ২৮ নভেম্বর প্রশিক্ষণের সময় বিজিবি সদস্যদের লক্ষ্যভ্রষ্ট গুলিতে একই এলাকার জ্যোতি আক্তার (৮) নামে এক শিশু আহত হয়।