• সোমবার, জানুয়ারী ২০, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৪৫ রাত

বাড়ি ফিরে শিশুটি বললো, 'পাপা ব্যথা দিছে'

  • প্রকাশিত ০৫:৩৩ সন্ধ্যা ডিসেম্বর ১১, ২০১৯
ধর্ষণ
প্রতীকী ছবি

শিশুটির দাদি বলেন, 'আমার এতিম নাতিটার এতো বড় সর্বনাশ কে করলো। যদি সেটা আমার ছেলেও হয়, তবুও যাতে সর্বোচ্চ শাস্তি হয়, এটাই আমার চাওয়া'


নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলায় সাড়ে চার বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে এক ব্যক্তিকে  গ্রেফতার করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-১১)। 

মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) রাতে অভিযান চালিয়ে ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। এর আগে সোমবার দুপুরে ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত ব্যক্তি শিশুটির আপন চাচা বলে জানা গেছে।  

র‌্যাব-১১ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার  মো. আলেপ উদ্দীন ঢাকা ট্রিবিউনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আলেপ উদ্দীন জানান, ভুক্তভোগী শিশুর পরিবার ও অভিযুক্ত ব্যক্তি একই বাড়িতে বসবাস করে আসছেন। এ সুযোগে তিনি বিভিন্ন সময় শিশুটিকে যৌন হয়রানি করতেন। গত সোমবার দুপুরে ওই ব্যক্তি শিশুটিকে ঘরে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন। এক ঘণ্টা পর শিশুটিকে তিনি বাসায় পাঠিয়ে দেন এবং এ বিষয়ে কাউকে কিছু না বলার জন্য ভয়ভীতি দেখান। 

শিশুটি বাসায় ফিরে তার বাবাকে বিস্তারিত জানায়। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরবর্তীতে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। 

পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত ওই ব্যক্তি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। 

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে অবস্থান করা ভুক্তভোগী শিশুর দাদি বলেন,  "সোমবার আইসা বলতাছে যে, এখানে ব্যাথা। কে ব্যাথা দিছে জিজ্ঞেস করলে নাতিন জানায়, ‘পাপা (অভিযুক্ত চাচা) ব্যাথা দিছে।'" 

তিনি আরও বলেন, "দেড় বছর বয়সেই শিশুটির মা মারা যায়। তারপর থেকেই ওই চাচা-চাচি তাকে নিজের সন্তানের মতো বড় করছে। এখন কেমনে কী হইলো, এটাই তো বুঝতাছি না।  আমার এতিম নাতিটার এতো বড় সর্বনাশ কে করলো। যদি সেটা আমার ছেলেও হয়, তবুও যাতে সর্বোচ্চ শাস্তি হয়, এটাই আমার চাওয়া।"