• সোমবার, জানুয়ারী ২০, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৪৫ রাত

খুলনায় আমরণ অনশনে পাটকল শ্রমিকের মৃত্যু

  • প্রকাশিত ০৭:২৮ রাত ডিসেম্বর ১২, ২০১৯
পাটকল-খুলনা
খুলনা মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান আব্দুস সাত্তার। ঢাকা ট্রিবিউন

‘অনশনরত অবস্থায় সকালে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধ্যায় তিনি মারা যান’

মজুরি কমিশন বাস্তবায়নসহ ১১ দফা দাবিতে খুলনায় চলমান আমরণ অনশনে অসুস্থ হয়ে এক পাটকল শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা পৌনে ৬টায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরী মেডিকেল অফিসার ডা. আব্দুল্লাহ বল মামুন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মারা যাওয়া আব্দুস সাত্তার (৫৫) প্লাটিনাম জুট মিলের তাঁত বিভাগের শ্রমিক ছিলেন।

রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল সিবিএ-নন সিবিএ সংগ্রাম পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক খলিলুর রহমান বলেন, “সাত্তার অনশনরত অবস্থায় সকালে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধ্যায় তিনি মারা যান।”

তবে, এ বিষয়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এদিকে, সাত্তারের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের গগনবিদারী শ্লোগানে কেঁপে ওঠে খুলনার গোটা শিল্পাঞ্চল।


আরও পড়ুন - খুলনায় অনশনের তৃতীয়দিন: শতাধিক পাটকল শ্রমিক হাসপাতালে


খুলনা অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ত ৯টি পাটকলের শ্রমিকরা ১১ দফা দাবিতে মঙ্গলবার থেকে আমরণ অনশন শুরু করেছেন। রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল সিবিএ-নন সিবিএ সংগ্রাম পরিষদের ডাকে প্রায় ৫০ হাজার শ্রমিক এ কর্মসূচিতে যোগ দিয়েছেন। শ্রমিকরা বলেছেন, তাদের নিয়মিত বেতন দেয়া হয়নি এবং এ পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের দাবিতে তারা রাস্তায় নামতে বাধ্য হয়েছেন।

আন্দোলনে থাকা পাটকলগুলো হচ্ছে- ক্রিসেন্ট জুট মিল, খালিশপুর জুট মিল, দৌলতপুর জুট মিল, প্লাটিনাম জুবিলি জুট মিল, স্টার জুট মিল, আলিম জুট মিল, ইস্টার্ন জুট মিল, কার্পেটিং জুট মিল ও জেজেআই জুট মিল।