• বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৯ রাত

প্রথমবারের মতো মুক্তিযোদ্ধা সংবর্ধনা পেলেন নওগাঁর ১০ বীরাঙ্গনা

  • প্রকাশিত ১০:৪৫ সকাল ডিসেম্বর ১৭, ২০১৯
নওগাঁ
সোমবার (১৬ ডিসেম্বর) রাণীনগর পাইলট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে মুক্তিযোদ্ধা সংবর্ধনা ও আলোচনা সভা শেষে নারী মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের পরিবার ঢাকা ট্রিবিউন

সম্প্রতি নওগাঁর ১০ বীরাঙ্গনাকে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি দেয় মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়

১৯৭১ সালে জীবন বাজি রেখে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন মুক্তিযুদ্ধে, হারিয়েছিলেন নিজেদের সম্ভ্রমও। কিন্তু সেই ত্যাগের বিনিময়ে কোনো সংবর্ধনা তো দূরে থাক, স্বীকৃতি পেতেই তাদের লেগেছে ৪৮বছর। অবশেষে সেই আক্ষেপও দূর হলো তাদের। ৪৯তম মহান বিজয় দিবসে জীবনের প্রথম সংবর্ধনা পেলেন নওগাঁর রাণীনগরের ১০ বীরাঙ্গনা। 

সোমবার (১৬ ডিসেম্বর) রাণীনগর পাইলট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা, নারী মুক্তিযোদ্ধা (বীরাঙ্গনা), যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা ও আলোচনা সভায় এ সংবর্ধনা দেওয়া হয় তাদের।

এসময় সম্মাননা, ক্রেস্ট ও স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র তুলে দেওয়া হয় বীরাঙ্গনা মায়া রানী সূত্রধর, রাশমণি সূত্রধর, সন্ধ্যা রানী পাল, কালীদাসী পাল, সন্ধ্যা রানী ও গীতা রানী পালের হাতে। এছাড়াও প্রয়াত বাণী রানী পাল, ক্ষান্ত রানী পাল, রেনু বালা ও সুষমা সূত্রধরের পরিবারের সদস্যদের হাতেও সম্মাননা ও ক্রেস্ট তুলে দেওয়া হয়েছে। 

সেই সঙ্গে পেলেন মুক্তিযোদ্ধা সম্মানী ভাতা, বিজয় উৎসব ভাতা, স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র, ক্রেস্ট ও স্থানীয় সংসদ সদস্যের পক্ষ থেকে একটি করে ছাগল।একই সঙ্গে পেয়েছেন সারা উপজেলাবাসীর শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা।

বীরাঙ্গনা মায়া রানী সূত্রধর বলেন, “জীবনের শেষ প্রান্তে এসে পাওয়া এই সংবর্ধনা এতদিনের কোন কিছু না পাওয়ার আক্ষেপ কিছুটা হলেও মুছে গেছে। আমরা আনন্দিত। আমাদেরকে এই সম্মাননা দেওয়ার জন্য বর্তমান সরকার, স্থানীয় সংসদ সদস্য ও উপজেলা প্রশাসনকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাই।”