• সোমবার, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:৩৭ দুপুর

মৌলভীবাজারের চা বাগানে ননদ-ভাবিকে গণধর্ষণ

  • প্রকাশিত ০২:৩৬ দুপুর ডিসেম্বর ২১, ২০১৯
গণধর্ষণ-ধর্ষণ
প্রতীকী ছবি বিগস্টক

তাদের একজনের সঙ্গে একটি শিশু সন্তানও ছিল

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলায় এক গৃহবধূ ও তার ননদকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে এক সিএনজিচালিত অটোরিকশাচালকসহ কয়েক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। এই ঘটনায় পুলিশ সাতজনকে আটক করেছে।  

শুত্রুবার (২০ ডিসেম্বর) রাতে কমলগঞ্জের মুন্সিবাজারে যাওয়ার পথে সিএনজিচালকের সহযোগিতায় গণধর্ষণের শিকার হন ওই দুই নারী। বর্তমানে তারা মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

নির্যাতিত দুই নারী জানান, বাড়ি যাওয়ার জন্য একটি সিএনজি রিজার্ভ করে মুন্সিবাজারের উদ্দেশে রওনা দেন তারা দু’জন। তাদের একজনের সঙ্গে একটি শিশু সন্তানও ছিল। সিএনজিটি প্রধান সড়ক দিয়ে না গিয়ে ফাঁড়ি পথে গেলে তারা প্রতিবাদ করেন। এসময় সিএনজিচালক রাস্তা খারাপের অজুহাত দেখান। কিছু দূর যাওয়ার আরও দু’জনকে গাড়িতে তোলেন চালক। পথে পেছনে আরেকটি সিএনজির আলো দেখতে পান তারা। একপর্যায়ে চালকসহ অন্যরা স্থানীয় একটি চা বাগানের নির্জন স্থানে নিয়ে দুইজনকে গণধর্ষণ করে। 

মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. রত্নদ্বীপ বিশ্বাস ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, "আমার তত্ত্বাবধানে দুই নারীর চিকিৎসা চলছে।" 

কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.আরিফুর রহমান জানান, এঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে  সিএনজি চালকসহ সাতজনকে আটক করা হয়েছে। তিনটি সিএনজি উদ্ধার করা হয়েছে। অভিযুক্তদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। তাদের নাম পরে প্রকাশ করা হবে।

মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. ফারুক আহমেদ ঢাকা ট্রিবিউন’কে জানান, এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।