• শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:২২ দুপুর

কেরানীগঞ্জে অগ্নিকাণ্ড: চিকিৎসাধীন বাকি ১০ জনের অবস্থা আশঙ্কামুক্ত

  • প্রকাশিত ১০:১১ সকাল ডিসেম্বর ২৩, ২০১৯
কেরানীগঞ্জের কারখানায় অগ্নিকাণ্ড
১১ ডিসেম্বর ঢাকার কেরাণীগঞ্জের একটি কারখানায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ঢাকা ট্রিবিউন

তাদেরকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়ার প্রস্তুতি শুরু হয়েছে

কেরানীগঞ্জের প্লাস্টিক কারখানার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আহত বাকি ১০ জনের সবার অবস্থা আশঙ্কামুক্ত। রবিবার (২২ ডিসেম্বর) ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের প্রধান সহযোগী অধ্যাপক ডা. তাহমিনা আক্তার এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, ওই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আহত ১০ জন বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাদের মধ্যে দু'জন শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনিস্টিউটের আইসিইউতে ও বাকি আটজন ঢামেক হাসপাতালের এইচডিইউতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।  

বর্তমানে তাদের সবার অবস্থা আশংকামুক্ত। ইতোমধ্যে কয়েকজনকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়ার প্রস্তুতিও শুরু হয়েছে।   

বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন বলেন, "লাইফ সাপোর্টে থাকা ১০ জনের মধ্যে ৮ জন মারা গেছেন। বর্তমানে দু'জন আইসিইউতে রয়েছেন। তবে, কয়েকদিন আগেই তাদের লাইফ সাপোর্ট খুলে নেওয়া হয়েছে। তাদের অবস্থা আশঙ্কামুক্ত।" 

অধ্যাপক ডা. তাহমিনা আক্তার বলেন, "আহত ৮ জনের মধ্যে কয়েকজনকে আরও কিছুদিন হাসপাতালে থাকতে হবে। কয়েকজনের ছোটখাটো কিছু অস্ত্রোপচার করতে হবে। বাকিদের রিলিজ দেওয়ার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। এই ৮ জনের সকলের অবস্থাই এখন আশঙ্কামুক্ত।" 

উল্লেখ্য, গত ১১ ডিসেম্বর বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের হিজলতলা এলাকায় প্রাইম পেট অ্যান্ড প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড কারখানায় গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হলে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়।

অগ্নিকাণ্ডে একজন ঘটনাস্থলেই নিহত হন। গুরুতর দগ্ধ হয়ে ঢামেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয় ৩০ জনকে। এদেরমধ্যে ২২ জন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।