• বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০২ সকাল

ইয়াবা দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে গণপিটুনিতে আহত তিন পুলিশ

  • প্রকাশিত ০৬:১৭ সন্ধ্যা ডিসেম্বর ৩০, ২০১৯
পুলিশ
প্রতীকী ছবি

স্থানীয়দের অভিযোগ, গুটিকয়েক পুলিশ সদস্য এভাবেই নিরীহ মানুষের পকেটে ইয়াবা ঢুকিয়ে দিয়ে মাদক ব্যবসায়ী হিসেবে ধরে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে ছেড়ে দেয়

রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার বড়দরগা এলাকায় এক ব্যবসায়ীর পকেটে ইয়াবা ঢুকিয়ে দিয়ে মাদক ব্যবসায়ী বলে গ্রেফতারের চেষ্টা করলে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী তিন পুলিশ সদস্যকে পিটিয়ে আহত করেছে। 

রবিবার (৩০ ডিসেম্বর) রাতে এ ঘটনা ঘটলেও বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

পীরগঞ্জ থানার ওসি সরেস চন্দ্র ঘটনার সত্যতা স্বীকার করলেও এ ঘটনায় কোনো মামলা হয়নি বলে জানিয়েছেন। 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বেশ কয়েকজন স্থানীয় বাসিন্দা জানিয়েছেন, রবিবার রাতে পীরগঞ্জ থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আলীমের নেতৃত্বে তিন পুলিশ সদস্য বড়দরগা বাজারের ব্যবসায়ী শাহিনের দোকানে গিয়ে তাকে দোকান থেকে বের হওয়ার জন্য বলেন। পুলিশের সঙ্গে শাহিনের কথোপকথনের মাঝে সেখানে লোকজন জড়ো হয়ে যায়। উপস্থিত লোকজনের সামনেই পুলিশ সদস্যরা তার পকেটে হাত ঢুকিয়ে “তোমার পকেটে ইয়াবা আছে” বলে শাহিনকে গ্রেফতারে উদ্যত হয়। সঙ্গে সঙ্গে বিষয়টির প্রতিবাদ জানান স্থানীয়রা।

যার পরিপ্রেক্ষিতে উপস্থিত স্থানীয় জনতার সঙ্গে পুলিশের কথা কাটা-কাটি শুরু হয়। স্থানীয়দের বাধা উপেক্ষা করেই পুলিশ ওই ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে শুরু হয় সংঘর্ষ। এলাকাবাসীর বেদম পিটুনিতে আহত হন তিন পুলিশ সদস্য। জনরোষ থেকে বাঁচতে দৌড়ে বড়দরগা পুলিশ ফাঁড়িতে গিয়ে আশ্রয় নেন পুলিশ সদস্যদের দু'জন। 

খবর পেয়ে পীরগঞ্জ থানা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ ফোর্স এসে জনতার রোষানলে আটকে পড়া অন্য পুলিশ সদস্যকে উদ্ধার করে। পরে তাদের তিনজনকেই থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। 

এদিকে, বিষয়টি জানাজানির তোলপাড় শুরু হয় এলাকায়। স্থানীয়দের অভিযোগ, পীরগঞ্জ থানার গুটিকয়েক পুলিশ সদস্য এভাবেই নিরীহ মানুষের পকেটে ইয়াবা ঢুকিয়ে দিয়ে মাদক ব্যবসায়ী হিসেবে ধরে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে ছেড়ে দেয়। 

এসব কর্মকাণ্ডে “পুলিশের সোর্স” পরিচয়ে কয়েকজন সরাসরি জড়িত থাকলেও তারা সবসময় আড়ালেই থেকে যায়। পুরো ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত সাপক্ষে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

সার্বিক বিষয়ে জানতে পীরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সরেস চন্দ্রের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করতে গেলে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে। এ সময় পুলিশের একটি ওয়াকিটকির এন্টেনা ভেঙে গেছে। এ ঘটনায় কোনো মামলা করা হয়নি।