• শুক্রবার, এপ্রিল ১০, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৩২ রাত

দূষিত বাতাসের শহরের তালিকায় চতুর্থ ঢাকা

  • প্রকাশিত ০৬:৫৪ সন্ধ্যা জানুয়ারী ১, ২০২০
বায়ু দূষণ
ঢাকার বায়ু দূষণ। ফাইল ছবি মেহেদি হাসান/ঢাকা ট্রিবিউন

বুধবার সকাল ১০টা ৫৩ মিনিটে এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সে ঢাকার স্কোর ছিল ২৬৯, এর অর্থ বাতাসের মান ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’

দূষিত বাতাসের শহরের তালিকায় বুধবার (০১ জানুয়ারি) সকালে চতুর্থ অবস্থানে উঠে এসেছে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা।

সকাল ১০টা ৫৩ মিনিটে এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সে (একিউআই) ঢাকার স্কোর ছিল ২৬৯। যার অর্থ, এ শহরের বাতাসের মান “খুবই অস্বাস্থ্যকর”।

আর এ তালিকায় অস্ট্রেলিয়ার ক্যানবেরা, জার্মানির মিউনিখ এবং ভারতের দিল্লি যথাক্রমে ৮৫৬, ৫৪১ এবং ৪৯৪ স্কোর নিয়ে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে।

একিউআই মান ২০১ থেকে ৩০০ হলে, স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়তে পারে নগরবাসী। কিন্তু ৩০১ থেকে ৫০০ বা তারও বেশি হলে বাতাসের মান ঝুঁকিপূর্ণ মনে করা হয়। এ অবস্থায় নগরবাসী স্বাস্থ্য সতর্কতাসহ জরুরি অবস্থার মুখোমুখি হতে পারে।

গ্রীষ্মের ভয়াবহ উত্তাপে দাবানলের ঝুঁকি বেড়ে গেছে অস্ট্রেলিয়ার রাজধানী ক্যানবেরা, সিডনি ও মেলবোর্নে। নিউ সাউথ ওয়েলস জুড়ে জ্বলতে থাকা ৯৭টি আগুনের ঘটনার মধ্যে এখনো অনেকগুলো নিয়ন্ত্রণে আসেনি। ফলে ক্যানবেরা দূষিত বায়ুর শহরের তালিকায় ঢুকে পড়েছে। 

একটি নির্দিষ্ট শহরের প্রতিদিনের বাতাসের মান নিয়ে একিউআই সূচক তৈরি করা হয়। যার মাধ্যমে একটি শহরের বাতাস কতটুকু বিশুদ্ধ বা দূষিত এবং সেই সাথে ওই পরিস্থিতিতে কোনো ধরনের স্বাস্থ্য ঝুঁকি তৈরি হতে পারে সেই তথ্য দেওয়া হয়।

একিউআই সূচকে ৫০ এর নিচে স্কোর থাকার অর্থ হলো বাতাসের মান ভালো। সূচকে ৫১ থেকে ১০০ স্কোরের মধ্যে থাকলে বাতাসের মান গ্রহণযোগ্য বলে ধরে নেয়া হয়। আর সূচকের স্কোর ১০১ থেকে ১৫০ হওয়ার অর্থ হলো বাতাসের মান সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর।

মাত্রাতিরিক্ত মানুষের বসবাসের নগরী ঢাকা দীর্ঘদিন ধরেই বাতাসে দূষণের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ নিয়ে হিমশিম খাচ্ছে। বর্ষাকালে কিছুটা উন্নতি হতে দেখা গেলেও গ্রীষ্ম ও শীকতালে শহরটিতে বায়ু দূষণের মাত্রা বেড়ে যায়।