• বৃহস্পতিবার, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:০৮ সকাল

খাগড়াছড়িতে ২০০ বিঘা জমির গাঁজা ক্ষেত ধ্বংস

  • প্রকাশিত ০৭:১৪ রাত জানুয়ারী ২, ২০২০
খাগড়াছড়ি-গাঁজা ক্ষেত
বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) সকালে খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গা উপজেলার ধল্যাছড়া পাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৩৫-৪০টি গাঁজা ক্ষেত সনাক্ত করে ধ্বংস করেন সেনাবাহিনী সদস্যরা। ঢাকা ট্রিবিউন

আইএসপিআর জানায়, এই ক্ষেতগুলো থেকে প্রায় ৪০ টনের মতো গাঁজা উৎপাদিত হয়েছে, যার আনুমানিক মূল্য একশ' কোটি টাকারও বেশি

খাগড়াছড়িতে প্রায় ২০০ বিঘা গাঁজা ক্ষেত ধ্বংস করেছে সেনাবাহিনী। বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) সকালে মহালছড়ি জোনের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মেহেদী হাসানের নেতৃত্বে মাটিরাঙ্গা উপজেলার ধল্যাছড়া পাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৩৫-৪০টি গাঁজা ক্ষেত সনাক্ত করে ধ্বংস করে সেনাবাহিনী।

অভিযান প্রসঙ্গে অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মেহেদী হাসান সাংবাদিকদের জানান, পার্বত্য চট্টগ্রামের বিভিন্ন সন্ত্রাসী গোষ্ঠী নিজেদের অস্ত্র ক্রয় ও সাংগঠনিক খরচ মেটানোর জন্য নতুন কৌশল হিসেবে সম্প্রতি দুর্গম এলাকায় মাদক চাষ শুরু করে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এই খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার সকালে অভিযান চালানো হয়। পরে ড্রোন ব্যবহার করে দুর্গম পাহাড়ে ৩৫-৪০টি গাঁজা ক্ষেত সনাক্ত করে ধ্বংস করা হয়। এ সময় ধল্যাছড়া গ্রামের ২৪টি বসতবাড়ি জনমানবশুন্য হয়ে পড়ে।

আইএসপিআর জানায়, এই ক্ষেতগুলো থেকে প্রায় ৪০ টনের মতো গাঁজা উৎপাদিত হয়েছে, যার আনুমানিক মূল্য একশ' কোটি টাকারও বেশি।

সেনাবাহিনীর মহালছড়ি জোনের অধিনায়ক লে. কর্নেল মেহেদী হাসান বলেন, "দুর্গম এলাকায় সাধারণ মানুষদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করে গাঁজা চাষে বাধ্য করা হচ্ছে। আগামী ৩ দিন আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে। অভিযানে ড্রোন ব্যবহার করে দুর্গম এই এলাকায় অবৈধ গাঁজা ক্ষেতগুলো সনাক্ত করা হবে।"

এর আগে গত ২২ ডিসেম্বর মহালছড়ির কলাবুনিয়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১৭ শ' গাঁজা গাছ ধ্বংস করেন সেনাবাহিনীর সদস্যরা। অভিযানে ২ ব্যক্তিকে আটক করা হয়।