• মঙ্গলবার, এপ্রিল ০৭, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:৩২ দুপুর

বঙ্গবন্ধুর ছোটবেলার স্কুলে ‘বঙ্গবন্ধু গ্যালারি’

  • প্রকাশিত ০৬:০৪ সন্ধ্যা জানুয়ারী ৮, ২০২০
‘বঙ্গবন্ধু গ্যালারি’
গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর বাল্যকালের বিদ্যাপীঠ জিটি মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ‘বঙ্গবন্ধু গ্যালারি’ ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে ঢাকা ট্রিবিউন

স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ সিবরুল ইসলাম বলেন, এখান থেকে শিশুরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে বড় হবে। তবে গ্যালারি করার পর সব বয়সের মানুষ এটি পরিদর্শনে আসছেন

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বাল্যকালের বিদ্যাপীঠ জিটি মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে “বঙ্গবন্ধু গ্যালারি” ব্যাপক সাড়া ফেলেছে।

গ্যালারিতে বঙ্গবন্ধুর বংশপরিচয়, ছোটবেলা, ছাত্রজীবন, পারিবারিক জীবন, রাজনৈতিক জীবন, মাঠে লড়াই-সংগ্রাম, বিশ্ব নেতৃবৃন্দের সাথে দেখা ও সাক্ষাৎকারের দুর্লভ সব ছবি সেখানে প্রদর্শিত হচ্ছে। পাশাপাশি ‘৭১ এর মুক্তিযুদ্ধ, গণহত্যা, মুক্তিযুদ্ধকালীন বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত খবরের উল্লেখযোগ্য সংবাদও গ্যালারিতে স্থান পেয়েছে। এছাড়া টুঙ্গিপাড়ার বঙ্গবন্ধু সমাধিসৌধ ও বঙ্গবন্ধু পরিবারের বেশকিছু ছবিও রয়েছে এই গ্যালারিতে।

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে জিটি মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় স্কুলে গ্যালারিটি স্থাপন করেছে

জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে জিটি মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় স্কুলে গ্যালারিটি স্থাপন করেছে।

মঙ্গলবার (৭ জানুয়ারি) সকালে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাকির হোসেন এবং সচিব মোঃ আকরাম-আল-হোসেন জিটি মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এই গ্যালারির অনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাকির হোসেন বলেন, “বঙ্গবন্ধুকে নতুন প্রজম্মের কাছে জানান দিতেই বঙ্গবন্ধুর বাল্যকালের বিদ্যাপীঠ জিটি মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু গ্যালারি করা হয়েছে। এখানে বঙ্গবন্ধুর ও মুক্তিযুদ্ধের দুর্লভ ছবি সংগ্রহে রাখা হয়েছে। এটি দেখে নতুন প্রজম্ম বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে জানতে পারছে। এরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বড় হয়েই ২০৪১ সালে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের বাংলাদেশ গড়বে।”

টুঙ্গিপাড়ার বঙ্গবন্ধু সমাধিসৌধ ও বঙ্গবন্ধু পরিবারের বেশকিছু ছবিও রয়েছে এই গ্যালারিতে

স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ সিবরুল ইসলাম বলেন, “বঙ্গবন্ধু ১৯২৭ সালে এই স্কুলে প্রথমশ্রেণীতে ভর্তি হন। তিনি তৃতীয়শ্রেণী পর্যন্ত এই স্কুলে পড়েছেন। তার আম্লান স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে আমরা স্কুলে গ্যালারিটি করেছি। এখান থেকে শিশুরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে বড় হবে। তবে গ্যালারি করার পর আমরা ব্যাপক সাড়া পেয়েছি। সব বয়সের মানুষ এই গ্যালারি পরিদর্শনে আসছেন।”